মঙ্গলবার-২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০-৭ আশ্বিন, ১৪২৭, সময়: রাত ২:০৩, English Version
৩ জেলা ও ৯ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত লালপুরে বিষধর সাপের কামড়ে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু! মাস্ক পরা নিশ্চিতে মার্কেট-শপিং মলে ‘আকস্মিক অভিযান’ লালপুর প্রেস ক্লাবের সভা অনুষ্ঠিত ফুলছড়িতে দি মেসেজ ফাউন্ডেশনের খাবার প্যাকেজ বিতরণ হিলিতে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত মানব পাচার ও বাল্য বিবাহের শিকার ও মানব পাচারের ঝুঁকিতে থাকা অসহায় নারী পুরুষগণের সমন্বয়ে গরু মোটাতাজাকরণ প্রশিক্ষণ উদ্বোধন

আবুল হায়াতের ৭৬তম জন্মদিন আজ

প্রকাশ: সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১২:২২ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

এমএন২৪.কম ডেস্ক :  একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য অভিনেতা, নাট্যকার ও নির্দেশক আবুল হায়াত। আজ ৭৬ বছর পূর্ণ করলেন টিভি নাটকের সবচেয়ে সফল বাবা খ্যাতি পাওয়া এ অভিনেতা। শুভ জন্মদিন। ১৯৬৯ সালে ‘ইডিপাস’ নাটকের মধ্য দিয়ে টেলিভিশন জগতে আত্মপ্রকাশ, ধীরে ধীরে তিনি হয়ে উঠেন টিভি নাটকের নিয়মিত অভিনেতা, প্রধান চরিত্রে অভিনয় না করেও ভীষণ জনপ্রিয় হয়েছিলেন। ভারতের পশ্চিমববঙ্গে জন্ম হলেও, দেশ বিভাগের পর চলে আসেন চট্টগ্রামে। বুয়েট থেকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা পাঠ চুকিয়ে প্রকৌশলী হিসেবে নিযুক্ত হন ওয়াসায়। ওয়াসার সেই ইঞ্জিনিয়ার অভিনয় দিয়ে হয়ে উঠেন টিভি নাটকের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় ‘বাবা’। অভিনয় করেছেন অসংখ্যা নাটকে। এইসব দিনরাত্রি, বহুব্রীহি, অন্য ভুবনের ছেলেটা, দ্বিতীয় জন্ম, শেখর, অয়োময়, নক্ষত্রের রাত, আজ রবিবার থেকে জোছনার ফুল, শুকনো ফুল রঙ্গিন ফুল,আলো আমার আলো, নদীর নাম নয়নতারা, খেলা, শনিবার রাত ১০টা ৪০ মিনিট, হাউজফুল, এফ এন এফসহ অসংখ্য দর্শকনন্দিত নাটকে অভিনয় করে নিজেকে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন। শুধু অভিনয়েই নয়, নাট্যকার হিসেবেও নিজের প্রতিভার আলো ছড়িয়েছেন। পরিচালনা করেছেন উন্মেষ, দিল দরিয়া, জোছনার ফুল, মন+ হৃদয়, হারানো সুর, শুকনো ফুল রঙ্গিন ফুলসহ, মধাহ্ন ভোজ কি হবে, হাত বাড়িয়ে দেওয়ার মত বহু আলোচিত নাটক। সম্প্রতি ‘উপহার’ নাটকেও ছড়িয়েছেন নিজের দ্যূতি। ১৯৭৩ সালে ঋত্বিক ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ চলচ্চিত্রে স্বল্প উপস্থিতিতে প্রথম সিনেমায় অভিনয় করেন। একই বছর ‘অরুণোদ্বয়ের অগ্নিসাক্ষী’ সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন। তবে নব্বইয়ের দশকে এসে পুরোদমে চলচ্চিত্রে অভিনয় করা শুরু করেন, কেয়ামত থেকে কেয়ামত, স্বপ্নের ঠিকানা, প্রানের চেয়ে প্রিয়, প্রেমের তাজমহল থেকে শঙ্খনীল কারাগার, আগুনের পরশমনি, জয়যাত্রা, দারুচিনি দ্বীপ, থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার, অজ্ঞাতনামা, ফাগুন হাওয়ায়সহ অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছেন। সাহিত্য জগতেও নিজের নাম লিখিয়েছেন, এ ছাড়া তিনি বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন,উপস্থাপক হিসেবেও প্রশংসিত হয়েছিলেন। মঞ্চনাটকেও তিনি ছিল অনন্য। আবুল হায়াত ১৯৭০ সালে মেজ বোনের ননদ মাহফুজা খাতুন শিরিনকে বিয়ে করেন। ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর জন্ম নেয় তাদের প্রথম সন্তান বিপাশা হায়াত। ছয় বছর পর জন্ম নেয় নাতাশা হায়াত। তারা দুজনেই শোবিজের জনপ্রিয় মুখ।

Facebook Comments

বিনোদন বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ