সোমবার-৮ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,-ভোর ৫:৫৭

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

৭১১জন শিক্ষক কর্মচারি এমপিও ভুক্তির আবেদন ত্রুটি সমস্যা দেখিয়ে তালিকা প্রকাশ করল কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর।শিক্ষক কর্মচারিদের মাঝে ক্ষোভ সৈয়দপুরে কুকুরের কামড়ে ৬ জন হাসপাতালে বিরামপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন  শিবগঞ্জে নানা আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ দিবস উদ্যাপন লালপুরে আ’লীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশে দেশিও পণ্যের সঠিক প্রদর্শন করতে হবে : শিল্পমন্ত্রী ‘সোনার বাংলা’ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিলেন মোদি

কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধে ত্বীন ফল

প্রকাশ: রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ , ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :
মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  আমাদের মধ্যে অনেকেরই শরীরে বাসা বাঁধে মরণব্যাধি ক্যান্সার। দিন দিন ক্যান্সার যেমন বাড়ছে, পাশাপাশি বাড়ছে এই রোগটি সম্পর্কে সচেতনতা। প্রাথমিক পর্যায়ে এই রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায় না। সচেতন রোগীর প্রাথমিক অবস্থায় রোগ ধরা পড়লে যথাযথ চিকিৎসায় ক্যান্সার পুরোপুরি সেরে যেতে পারে অথবা নিয়ন্ত্রণে রাখা অনেক সহজ হয়। এজন্য আপনি প্রতিদিন দুই থেকে তিনটি ত্বীন ফল খেতে পারেন। ত্বীন ফল ক্যান্সারের জন্য খুবই উপকারী।   ত্বীন ফলের উপকারিতা সম্পর্কে মেডিক্যাল সাইন্সে প্রমানিত অনেক রিপোর্ট আছে। ত্বীন ফল দিয়ে জ্যাম, জ্যালি, চাটনি ইত্যাদি তৈরি করে খাওয়া যায়। এর মধ্যে আছে কার্বোহাইড্রেটেড, সুগার, ফ্যাট, প্রোটিন, থায়ামিন, রিবোফ্লাবিন, ক্যালসিয়াম এবং আয়রনসহ নানাবিধ পুষ্টিগুণ। পুষ্টি গুণের পাশাপাশি এটির বহুবিধ ওষুধি গুণও রয়েছে। ভোক্তা চাহিদার কথা বিবেচনায় রেখে খাস ফুড আপনাদের জন্য সরবরাহ করছে সিরিয়া থেকে আমদানিকৃত সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যসম্মত এবং পুষ্টিগুণ সম্পন্ন ত্বীন ফল। এছাড়াও এতে আরো গুণ রয়েছে চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সে সম্পর্কে-

কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে
রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমান বেশি মানে হৃদপিণ্ডের ঝুঁকি। তাই রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমান নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি। ত্বীন ফলের ফাইবার শরীরে দ্রুত শোষিত হয়। এর ফাইবার দ্রুত দ্রবীভূত হয়ে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এছাড়াও ত্বীন ফলে বিদ্যমান পেকটিন কোলেস্টেরল কমাতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে
আপনি যদি উচ্চরক্তচাপ জনিত সমস্যায় ভুগে থাকেন তবে নিয়মিত ত্বীন ফল গ্রহন আপনার রক্তচাপ আশানুরূপভাবে কমতে শুরু করবে। ত্বীন ফলে প্রচুর পরিমাণ পটাসিয়াম বিদ্যমান। এটি উচ্চ রক্তচাপ  নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। হজমে সাহায্য করে
ত্বীন ফলের বিদ্যমান উচ্চ ফাইবার আপনার হজমকে উন্নত করবে। এটি বিপাকে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে রেহাই দেয়। ত্বীন ফল ডায়ারিয়া নিরায়মেও কাজ করে এবং সম্পূর্ণ হজম প্রক্রিয়াকে সহজ করে। আপনার হজমকে উন্নত করতে নিয়মিত দুই থেকে তিনটি ত্বীন পানিতে ভিজিয়ে রেখে সকালে পান করুন। এর সঙ্গে চাইলে মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। রক্তস্বল্পতা দূর করে
ত্বীন ফলে আয়রনের প্রাচুর্য্য আপনার শরীরের রক্তস্বল্পতা ও আয়রনের ঘাটতি পূরন করবে। নারীদের দেহে আয়রনের পরিমান সঠিক রাখা একান্ত গুরুত্বপূর্ণ। গর্ভাবস্থায়ও মায়ের দেহে আয়রনের পরিমান নিশ্চিত করতে পারে ত্বীন ফল। এতে উপস্থিত আয়রনের কার্যকারিতা রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধ ও দূর করতে সাহায্য করে। ক্যান্সার প্রতিরোধ করে
গবেষনায় উঠে এসেছে, যেসকল নারীরা তাদের ডায়েটের অংশ হিসেবে রোজ ত্বীন গ্রহন করেন তাদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কম। মূলত ত্বীন ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার যা ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। কোলন ক্যান্সার রোধেও এটি বেশ কার্যকর। হাড়ের রক্ষণাবেক্ষণে ত্বীন ফল
হাড়ের সুস্থতায় ক্যালসিয়াম অপরিহার্য। তবে এই গুরুত্বপূর্ণ খনিজ উপাদানটি আমাদের দেহে উৎপাদন হয় না। তাই একমাত্র খাদ্যাভাসের মাধ্যমেই শরীরে এর চাহিদা পূরন করতে হয়। ত্বীনে মজুত ক্যালসিয়াম আপনার দেহে ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরন করে হাড়কে করে তুলবে মজবুত ও শক্তিশালী। এছাড়াও এটি পটাসিয়ামের ভালো উৎস হওয়ায় হাড়ের ক্ষয় রোধেও উপকারী।

Facebook Comments

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ