শনিবার-২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০-১২ আশ্বিন, ১৪২৭, সময়: রাত ৯:০১, English Version
জগন্নাথপুরে প্রশাসের সহযোগিতায় জামাত নেতা আবুল কাসেমের নেতৃত্বে অবৈধ বালু উত্তোলনের মহা উৎসব লালমনিরহাটের হতদরিদ্র কটকটি বিক্রেতা সরকারী ঘর চায় শিবগঞ্জে কৃষকলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত শিবগঞ্জে জাতীয় রিক্সা-ভ্যান শ্রমিক লীগ সম্মেলন অনুষ্ঠিত শিবগঞ্জে ২ সন্তানের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত বিধবা মা ও বোনের সাংবাদিক সম্মেলন ছাতকে জেলহত্যা দিবস পালনে আ’লীগের প্রস্তুতিসভা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করলেন ডুয়েটের নবনিযুক্ত ভিসি

দলের ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে সৈয়দপুর জেলা বিএনপি

প্রকাশ: বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ২:৩১ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর ৪২ তম প্রতিষ্ঠাা বার্ষিকী পালন করেছে নীলফামারীর সৈয়দপুর সাংগঠনিক জেলা বিএনপি। দিবসটি উপলক্ষ্যে গতকাল ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার শহরের নতুনবাবুপাড়া পৌরসভা সড়কের আদিবা কনভেনশন সেন্টারে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব আব্দুল গফুর সরকার।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির গ্রাম সরকার বিষয়ক সহ সম্পাদক ও সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ মোঃ আমজাদ হোসেন সরকার।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব ও পৌর প্যানেল নেয়র-২ শাহিন আখতার শাহিন, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক শেখ বাবলু, জেলা যুবদল সাধারণ সম্পাদক ও ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারিক আজিজ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ও ১০ ওয়ার্ড কাউন্সিলর এরশাদ হোসেন পাপ্পু এবং সাধারণ সম্পাদক এম এ পারভেজ লিটন প্রমুখ।
প্রধান অতিথি পৌর মেয়র অধ্যক্ষ মোঃ আমজাদ হোসেন সরকার বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ও স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের স্থপতি,   বাংলাদেশীী জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অসংখ্য যুগান্তকারী পদক্ষেপের অন্যতম হলো বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর প্রতিষ্ঠা। ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর এ দল গঠনের মাধ্যমে তিনি তাঁর রাজনৈতিক প্রজ্ঞার প্রতিফলন ঘটিয়ে দিকভ্রান্ত জাতীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার পথ দেখিয়েছিলেন। সদ্য স্বাধীন দেশের বিপর্যস্থ মানুষকে বাঁচতে শিখিয়েছিলেন। তথাকথিত সমাজতন্ত্র ও গণতন্ত্র হত্যা করে গঠিত বাকশালের গ্যাড়াকলে পিষ্ট মানবাধিকারকে পুনরুদ্ধার করেছিলেন। বাংলাদেশীী জাতীয়তাবাদেে উদ্বুদ্ধ করে বহুভাষাভাষী, বহু দল-মত-ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের বন্ধন তৈরী সৃষ্টির মাধ্যমে সাম্য, সুখী, সমৃদ্ধ দেশ গড়ার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। আজকের এই দিনে তাই সেই মহান বীরকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি।
তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর স্বৈরশাসক জেকে বসেছিল এ জাতির মসনদে। শহীদ জিয়ার আদর্শের সুযোগ্য উত্তরসূরী তাঁরই সহধর্মিণী, আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পর স্বৈরাচার এরশাদের পতন ঘটে। জনগণের ভোটে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পায় বিএনপি। পূনঃপ্রতিষ্ঠিত হয় গণতন্ত্র এবং মানুষ ফিরে পায় অধিকার। প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া যখন শহীদ জিয়ার মতাদর্শের ভিত্তিতে দেশকে সমৃদ্ধির পথে বহুদূর এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন, ঠিক তখন বিশ্বনন্দিত মধ্যবর্তী সরকার ব্যবস্থা “তত্বাবধায়ক” পদ্ধতি নিয়ে আপত্তি তুলে ফখরুদ্দিন-মঈনুদ্দিন এর ঘাড়ে  বন্দুক রেখে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে আওয়ামীলীগ। ভারতসহ বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদী শক্তির সাথে আঁতাত করে ক্ষমতায় বসে। ১৫ বছর ধরে জগদ্দল পাথরের মত চেপে আছে দেশবাসীর ঘাড়ে। সর্বশেষ বিনাভোটের নির্বাচনের প্রহসনের মাধ্যমে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে নব্যবাকশাল প্রতিষ্ঠার পায়তারা করছে। কেড়ে নিয়েছে বাক স্বাধীনতাসহ সবধর মানবাধিকার।
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ আবদুল গফুর সরকার বলেন, আজ আমরা কথা বলতে পারিনা। আওয়ামীলীগ ছাড়া যেন অন্য কারও রাজনীতি করার অধিকার নাই। হামলা চালিয়ে মামলা দিয়ে বিএনপি’র হাজার হাজার নেতাকর্মীদের জেলে পুরে, খুন গুম করে পর্যুদস্ত করেছে। ভারতের প্রতি নতজানু পররাষ্ট্র নীতির বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে ফেলেছে। অভুতপূর্ব অনিয়ম ঘুষ দূর্নীতি লুটের মাধ্যমে অর্থ পাচার, চাঁদাবাজি দখলবাজি আর বিচার বহির্ভুত হত্যাকান্ডের নৈরাজ্যের অভয়ারণ্যে পরিনত হয়েছে দেশ। ক্ষমতার অপব্যবহারে এতটাই মত্ত হয়েছে যে   বৈশ্বিক মহামারী করোনাকালেও বেপরোয়া দূর্নীতিতে বিশ্ব রেকর্ড করেছে সম্রাট-পাপিয়া-সাহেদ-প্রদীপ কান্ড। দ্রব্যমূল্যের আকাশচুম্বী বৃদ্ধি,ত্রাণের চাল গম টাকা আত্মসাৎ করেও জলজ্যান্ত মিথ্যেচারের ফলে দেশবাসীর নাভিশ্বাস অবস্থা। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য তারা একমাত্র ভরসাস্থল বিএনপি’র দিকে তাকিয়ে আছে। তাই আজ এ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সকলকে শপথ নিতে হবে যে উদ্দেশ্যে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এ রাজনৈতিক দল গঠন করেছিলেন সেই লক্ষ বাস্তবায়নের। জীবনপাত আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে। তা না হলে এই ফ্যাসিস্ট সরকার এদেশকে নিশ্চিন্হ করে ফেলবে। তখন আর কিছুই থাকবেনাা।
Facebook Comments

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ