বুধবার-৩রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,-রাত ১১:১৮

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

বালিয়াডাঙ্গীতে ৭ ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত আদমদীঘিতে কাদা কেটে অর্ধ কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ নোবিপ্রবিতে  সাংবাদিক মোজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন  ভাসানচর আবারো পৌঁছেছে ২২৫৭ রোহিঙ্গা  খানসামায় উপজেলা বিএনপি’র আহ্বায়কের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ ডোমারে সুজনের বিরুদ্ধে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে। সুধারাম এয়ারফিল্ডে বিমান বাহিনীর বিশেষ এয়ার অপারেশন অনুশীলন

পাকিস্তানের থেকে কোনোরকম সাহায্যের প্রয়োজন নেই ভারতের

প্রকাশ: শনিবার, ১৩ জুন, ২০২০ , ১২:০২ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

এমএন২৪.কম ডেস্ক : ভারতের দরিদ্রদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা দেবে পাকিস্তান। শুনে চমকে উঠতে পারেন। কিন্তু পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকার এমনটাই প্রস্তাব দিয়েছিল। পাকিস্তানের গায়ে মানে না আপনি মোড়ল মার্কা প্রস্তাব হাসিমুখে ফিরিয়ে দিয়েছে ভারত। সেইসঙ্গে পাকিস্তানকে ঘর সামলে বাইরে তাকানোর পরামর্শ দিয়েছেন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব। করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে পাকিস্তানে। এমনকী ভারতেও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তবে মহামারীর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করোনা প্যাকেজের ঘোষণা করেছে। আর তাই পাকিস্তানের থেকে কোনওরকম সাহায্য নেওয়ার প্রয়োজন ভারতের পড়বে না বলে জানানো হয়েছে।  অনুরাগ শ্রীবাস্তব অনলাইন সাংবাদিক সম্মেলন করে পাকিস্তানকে মনে করিয়ে দিয়েছেন, ভারতে করোনা প্যাকেজ পাকিস্তানের জিডিপি-র সমান। তাছাড়া তিনি এটাও বলেছেন যে দুঃসময়ে পাকিস্তানের সরকারের সবার আগে দেশের মানুষের দিকে তাকানো উচিত। পাকিস্তানের আর্থিক দুরাবস্থার কথা এখন সারা বিশ্ব জানে। তাই নিজের দেশের গরীবদের সহায়তা না করে কেন অন্য দেশের প্রতি এত সহানুভূতি দেখানোর কোনও মানে হয় না। তিনি ইমরান খানের উপদেষ্টাদের পাকিস্তানেরপ জনগণের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এমনিতেই ঋণে জর্জরিত পাকিস্তান। অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। দেশের বেশিরভাগ মানুষ আর্থিক সমস্যায় জর্জরিত। তার মধ্যে পাকিস্তান সরকারের ভারতের গরীবদের সাহায্য করার প্রস্তাবেকে অনেকেই বাঁকা চোখে দেখছেন। গত মাসেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করোনাভাইরাসের প্রভাবে আর্থিক ক্ষতির মোকাবিলার জন্য ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেছেন। সেই প্যাকেজের বন্টন কীভাবে হবে তা নিয়েও রূপরেখা তৈরি। সাধারণ মানুষকে সেই টাকার ব্যবহারিক প্রয়োগ বুঝিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। করোনাভাইরাসের প্রকোপ রুখতে দীর্ঘদিন ধরে দেশে লকডাউন জারি হয়েছে। আর তার ফলে দেশের অর্থনীতির চাকা থমকে রয়েছে। ইতিমধ্যে বহু মানুশ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। তবে দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করতে মানুষকে স্থানীয় পণ্যের উপর ভরসা রাখতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেছেন আত্মনির্ভর ভারত গড়ার কথা। সেটা কতটা সম্ভব তা সময় বলবে।

Facebook Comments

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ