বুধবার-২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০-৮ আশ্বিন, ১৪২৭, সময়: বিকাল ৩:৩৬, English Version
মানবপাচারকারী শেখ আমিনুর রহমান হিমু এনএসআই ও র‌্যাবের হাতে ম্যাগজিন, পিস্তলসহ আটক পানছড়িতে ওলামা পরিষদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত। আংশিকভাবে প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার সুযোগ নেই সংসদ ভবনের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রেজেন্টেশন প্রত্যক্ষ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর গতিশীল নেতৃত্বে করোনাকালেও দেশের প্রবৃদ্ধি এশিয়ায় প্রায় সবদেশের উপরে   — তথ্যমন্ত্রী ছাতকে গলায় গামছা পেছিয়ে বৃদ্ধের আত্মহত্যা ছাতকে গোবিন্দগঞ্জে ৫টি দোকানঘরে ডাকাতি

পাকুয়াখালীতে ৩৫ কাঠুরিয়া হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে খাগড়াছড়ি নাগরিক পরিষদের মানববন্ধন।

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ৭:২৮ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

জেলা প্রতিনিধি :

পাকুয়াখালীতে ৩৫ বাঙ্গালী কাঠুরিয়া হত্যাকান্ডের বিচার দাবিতে খাগড়াছড়িতে শোক র‌্যালি ও মানববন্ধন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ। খাগড়াছড়ি শহরের শাপলা চত্বরের সামনে থেকে র‌্যালি শুরু হয়ে চেঙ্গী স্কয়ার হয়ে ভাঙ্গা ব্রিজ ঘুরে পুনরায় শাপলা চত্বরে এসে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) খাগড়াছড়ি পৌর শাপলা চত্বরে আয়োজিত মানববন্ধনে এ নির্মম ও নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের জন্য আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক শান্তিবাহিনীর নেতা সন্তু লারমাকে দায়ী করে সকল খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও নিহতদের পরিবারের সদস্যদের ক্ষতিপূরণসহ পুনর্বাসনের দাবি জানানো হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ লোকমান হোসাইনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পিসিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব ও বাঘাইছড়ির সাবেক পৌর মেয়র আলমগীর কবির।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন পিসিএনপি’র কেন্দ্রীয় সিঃ যুগ্ন সম্পাদক খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি আব্দুল মজিদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পিসিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সম্পাদক ও খাগড়াছড়ি জেলার সিঃ সহ-সভাপতি এস এম মাসুম রানা, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুজ্জামান ডালিম, খাগড়াছড়ি জেলা সহ-সভাপতি এস এম হেলাল, রাঙামাটি জেলার দপ্তর সম্পাদক মোঃ হাবিব আজম হাবিব।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রনেতা আসাদুল্লাহ্ আসাদ, পিসিএনপি খাগড়াছড়ি জেলা যুগ্ন সম্পাদক রবিউল ইসলাম, সহ- সাধারণ সম্পাদক জালাল প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলমগীর কবির বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে আন্তর্জাতিক ও দেশীয় ষড়যন্ত্র হচ্ছে, পাহাড়ে খুন, গুম, হত্যা করে রক্তের হলি খেলায় মেতেছে সন্তু, প্রসিতের নেতৃত্বধীন সন্ত্রাসী সংগঠন জেএসএসইউপিডিএফ এর সন্ত্রাসীরা। পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রতিনিয়ত সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সন্তু লারমা, প্রসিত খীসা। এসব সন্ত্রাসীদেরকে গণ জাগরণের মাধ্যমে প্রতিরোধ করা হবে।

তিনি বলেন, পাবর্ত্য চট্টগ্রামের উপজাতি সন্ত্রাসী সংগঠন জেএসএস’র সশস্ত্র শাখা শান্তিবাহিনীর হাতে অসংখ্য বর্বরোচিত, নারকীয় ও পৈশাচিক হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছে পাবর্ত্য অঞ্চলের বাঙালিরা। অসংখ্য ঘটনার মধ্যে আজ বুধবার পাবর্ত্য চট্টগ্রামের ইতিহাসে একটি নৃশংসতম বর্বর গণহত্যা দিন, পাকুয়াখালী ট্রাজেডি দিবস।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, ১৯৯৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ির পাকুয়াখালীতে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন শান্তিবাহিনীর সদস্যরা ৩৫ বাঙ্গালী কাঠুরিয়াকে মিটিং-এর কথা বলে ডেকে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। কিন্ত হত্যাকান্ডের ২৪ বছর পার হলেও এখনো তার বিচার হয়নি।

মানববন্ধন থেকে এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের নির্দেশ দাতা আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক শান্তিবাহিনীর নেতা সন্তু লারমাসহ সকল খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও নিহতদের পরিবারের সদস্যদের ক্ষতিপূরণসহ পুনর্বাসনের দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনের আগে একটি শোক র‌্যালি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

Facebook Comments

চট্রগ্রাম,ঢাকা,রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ