বুধবার-২৭শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,-বিকাল ৪:২২

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

কলাপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বহিস্কার  বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে কুইজ প্রতিযোগিতায় স্মার্টফোন বিজয়ী হলেন খানসামার রাহুল রায় সৈয়দপুরে শীত নিবারণে অব্যর্থ চেষ্টা চুলার আগুনে বৃদ্ধা দগ্ধ এসএসসি’র সংক্ষিপ্ত সিলেবাস বাতিল করার সিদ্ধান্ত ৩ কোটি ৪০ লাখ মানুষ পাবে করোনার টিকা: প্রধানমন্ত্রী চসিক নির্বাচনে নৌকা-ধানের শীষের ভোটের লড়াই চলছে গরম গরম বাঁধাকপির স্যুপে শীতের সকাল

বেসরকারিভাবেও টিকা দেবে বেক্সিমকো

প্রকাশ: বুধবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ , ২:২০ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

এমএন২৪.কম ডেস্ক : বাংলাদেশের বাজারে বেসরকারিভাবেও মহামারি করোনার টিকা বিক্রি করতে যাচ্ছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। আগামী মাসেই এ কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে জানা গেছে। এতে প্রতি ডোজের দাম পড়বে এক হাজার ১২৫ টাকার (১৩.২৭ ডলার) মতো।

বেক্সিমকোর চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) রাব্বুর রেজার বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

রয়টার্সকে দেওয়া টেলিফোন সাক্ষাৎকারে রাব্বুর রেজা জানিয়েছেন, তার প্রতিষ্ঠান সরকারি টিকাদান কর্মসূচির বাইরে বেসরকারিভাবে বাজারে বিক্রির জন্য ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে প্রায় ৩০ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড টিকা কিনছে। এর প্রতি ডোজের জন্য সেরাম ইনস্টিটিউটকে আট ডলার করে পরিশোধ করবে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। সরকারকে দেয়ার জন্য বেক্সিমকো সেরাম থেকে যে টিকা আনছে, এটি তার দামের প্রায় দ্বিগুণ।

সরকারি টিকাদান কর্মসূচির জন্য বেক্সিমকো বছরের প্রথমার্ধে প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা সরবরাহ করবে। প্রতিষ্ঠানটির সিওও রয়টার্সকে জানিয়েছেন, সরকারের কাছে ও বাজারে বিক্রির জন্য সেরাম ইনস্টিটিউট এ মাসের শেষ দিকেই টিকা সরবরাহ শুরু করবে। টিকা গ্রহণে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের মাঝে বিরতি দিয়ে ভ্যাকিসনটির দুইটি ডোজ নিতে হবে।

রাব্বুর রেজা আরো জানান, বেসরকারিভাবে তারা যে ৩০ লাখ ডোজ টিকা বিক্রির পরিকল্পনা করছেন এর মধ্যে ১০ লাখ ডোজের জন্য এরইমধ্যে চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। এখন আরো ২০ লাখ ডোজ সংগ্রহের পরিকল্পনা করছে তার প্রতিষ্ঠান।

তিনি জানান, ২০২০ সালের আগস্টে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী, বাংলাদেশে সেরাম ইনস্টিটিউটের উৎপাদিত ভ্যাকসিনের ‘এক্সক্লুসিভ ডিস্ট্রিবিউটর’ বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। এর বাইরে বায়োলোজিক্যাল ই ও ভারত বায়োটেকের মতো ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী অন্যান্য ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। সরকার চাইলে বেক্সিমকো অন্যান্য টিকার বিষয়েও আলোচনা এগিয়ে নেবে।

প্রসঙ্গত, সেরামের কাছ থেকে এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা সংগ্রহের জন্য এরইমধ্যে চুক্তি করেছে ভারত। ভারতের কাছে তারা প্রতি ডোজের দাম রাখছে ২ দশমিক ৭৩ ডলার। তবে বাংলাদেশের কাছে প্রতি ডোজের দাম রাখা হচ্ছে চার ডলার করে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর দাম পড়বে প্রায় ৩৪০ টাকা। সেরামের কাছে ভারত যে মূল্যে এই টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশের জন্য সেই মূল্য প্রায় দেড়গুণ (৪৭ শতাংশ) বেশি।

Facebook Comments

আন্তর্জাতিক,করোনভাইরাস,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ