সোমবার-২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,-রাত ৮:৩৪

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তৃতীয়বারের মতো হোয়াইটওয়াশ ছাতকে এক প্রবাসী পরিবারের উদ্যোগে সড়ক নির্মাণ এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নতুন সিলেবাস প্রকাশ সব মাদরাসা খোলার প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে, গাইড লাইন প্রকাশ পীরগাছায় নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলের দাবীতে অভিযোগ বিভ্রান্তি ছড়িয়ে জনগণের সাথে প্রতারণা করছে বিএনপি -তথ্যমন্ত্রী সৈয়দপুরে প্রচন্ড ঠান্ডায় হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা

মেসির জোড়া গোলে বার্সার দুর্দান্ত জয়

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৭ জানুয়ারি, ২০২১ , ১১:০২ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

এমএন২৪.কম ডেস্ক : দলের পারফরম্যান্সের ওঠানামার মাঝে নিজেও ভুগছিলেন কিছুটা। কয়েকটি ম্যাচে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। সেই আড়াল থেকে যেন বেরিয়ে এলেন লিওনেল মেসি। অধিনায়কের পাশে আলো ছড়ালেন প্রতিভাবান পেদ্রি। ৩ বছর পর আথলেতিক বিলবাওয়ের মাঠে জিতল বার্সেলোনা। সান মামেসে বুধবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ৩-২ গোলে জিতেছে রোনাল্ড কুমানের দল। দারুণ এই জয়ে লিগ টেবিলের তিন নম্বরে উঠেছে বার্সেলোনা। মৌসুমে এই প্রথম শীর্ষ চারে উঠল দলটি। ঘরের মাঠে শুরুটা ঝড়ের বেগে করে বিলবাও। ম্যাচের মাত্র তৃতীয় মিনিটে বার্সা রক্ষণকে স্রেফ তাসের মতো উড়িয়ে দিয়ে দুর্দান্ত এক পাল্টা আক্রমণে গোল করে স্বাগতিকরা। মাঝমাঠ থেকে আসা বল ধরে ডিফেন্ডার ক্লেমেন্ত লংলেকে পেছনে ফেলে বল জালে জড়ান উইলিয়ামস।

বিপদ আরও বাড়তে পারত বার্সেলোনার। মিনিট তিনেকের মধ্যে ফের জোরাল আক্রমণ সাজায় বিলবাও। কিন্তু সেবার শটটি লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ইউরি বের্চিচ, মারেন পাশের জালে। সে দফায় বেঁচে যায় বার্সেলোনা। এরপর আর তেমন ভুল করেনি তারা, গুছিয়ে নিতে শুরু করে নিজেদের খেলা। সমতাসূচক গোলের জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হয় ম্যাচের ১৪ মিনিট পর্যন্ত। ডি-বক্সের বেশ বাইরে থেকে যে ক্রসটি নিয়েছিলেন মেসি, তা প্রায় বাইরেই চলে যাচ্ছিল। সেটিতে বাইলাইন থেকে লাফিয়ে ভলি করেন ফ্র্যাংকি ডি ইয়ং, পেয়ে যান ডি-বক্সে ফাঁকায় থাকা তরুণ পেদ্রি, যিনি জালের ঠিকানা খুঁজে নিতে কোনো ভুল করেননি। প্রথম গোল করে ফেলার পর বিলবাওয়ের রক্ষণভাগের ওপর চাপ বাড়াতে থাকে কাতালানরা। কখনও দারুণ রক্ষণ, আবার কখনও নিজেদের ভুলে দ্বিতীয় গোল পাচ্ছিল না বার্সা। তবে বিরতিতে যাওয়ার আগে ঠিকই লিড নেয় শিরোপাপ্রত্যাশী দলটি, সেই গোল আসে ম্যাচের ৩৮ মিনিটে। আগের গোলের মতো এবারও অবদান রাখেন পেদ্রি। মাঝমাঠ থেকে পেদ্রির উদ্দেশ্যে বল বাড়িয়ে ফাঁকায় অবস্থান নেন মেসি। অধিনায়ককে ফাঁকায় দেখে বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাকহিল করেন পেদ্রি। সেটি ধরে অসাধারণ দক্ষতায় বিলবাও গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন বার্সা অধিনায়ক। প্রথমার্ধে আরও অন্তত দুইটি গোল হতে পারত বার্সার। ফরাসি স্ট্রাইকার অ্যান্তনিও গ্রিজম্যানের জোরাল শট রুখে দেন বিলবাও গোলরক্ষক সিমোন। পরমুহূর্তে ডি-বক্সের মুখ থেকে ঠিকঠাক শট নিতে পারেননি মেসি। ফলে ২-১ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় সফরকারীরা।
দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ৫৩ মিনিটের সময় আবারও বল জালে জড়ান মেসি। কিন্তু সেটি বাতিল হয়ে যায় অফসাইডের কারণে। মিনিট ছয়েক পর মেসির বাম পায়ের ট্রেডমার্ক শট বাইরে চলে যায় দূরের পোস্টে লেগে। ফলে আরও একবার হতাশায় পুড়তে হয় বার্সা অধিনায়ককে। তবে এর মিনিট তিনেক পর দ্বিতীয় গোল ঠিকই করেন মেসি। জর্দি আলবার বাড়ানো বল ধরে সেটি মেসির উদ্দেশ্যে এগিয়ে দেন গ্রিজম্যান। উঁচু করে নেয়া শটে বাকি কাজ সারেন মেসি। লা লিগার চলতি আসরে এটি মেসির নবম গোল। যার সুবাদে তিনি যৌথভাবে বসলেন আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকার শীর্ষে। মূলত মেসির দ্বিতীয় গোলের পরেই বার্সার জয় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গেছিল। তবু আক্রমণের ধার কমায়নি তারা। কিন্তু মেলেনি সুফল। উল্টো নির্ধারিত সময়ের একদম শেষ মিনিটে গোল করে ভয় পাইয়ে দেন মুনিয়াইন। তবে সেটি পরাজয়ের ব্যবধান কমানো ছাড়া আর কোনো কাজে আসেনি। অধিনায়কের উদ্ভাসিত পারফরম্যান্সে পাওয়া এ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের তিন নম্বরে উঠে এসেছে বার্সেলোনা। এপর্যন্ত খেলা ১৭ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট সংগ্রহ তাদের। শীর্ষে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের ঝুলিতে আছে ১৫ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট। বিলবাও ১৮ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে অবস্থান করছে ৯ নম্বরে।

Facebook Comments

খেলাধূলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ