বৃহস্পতিবার-৬ আগস্ট, ২০২০-২২ শ্রাবণ, ১৪২৭, সময়: সকাল ১০:২০, English Version
আদমদীঘিতে মেধাবী ছাত্র সিহাব হত্যার প্রতিবাদে দমদমা গ্রামবাসীর উদ্যোগে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত ছাতকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু গাইবান্ধা ৭৭ পিচ ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার মধ্যপাড়া খনির ৮০০ শ্রমিক কাজে ফিরলো পার্বতীপুরে নবাগত প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ফুলের শুভেচ্ছা গাইবান্ধায় বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষার্থী হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন বিক্ষোভ কামাল বেঁচে থাকলে দেশকে অনেক কিছু দিতে পারত

রাজনীতি নিষিদ্ধ বুয়েটসহ ৪ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা

প্রকাশ: শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০ , ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

এমএন২৪.কম ডেস্ক :  আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর রাজনীতি নিষিদ্ধ হওয়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে আংশিক আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এছাড়া আরও তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আংশিক কমিটি গঠনের কথা জানিয়েছে ছাত্র সংগঠনটি।  ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল এই কমিটির অনুমোদন দেন। গতকাল শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘নবনির্বাচিতদের এক মাসের মধ্যে কমিটির পূর্ণাঙ্গ তালিকা এবং একইসঙ্গে অধীনস্থ সব ইউনিট কমিটি গঠন করে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদে জমা দেওয়ার জন্য বিশেষভাবে নির্দেশ দেয়া হলো।’ ফেসবুকে দেয়া একটি স্ট্যাটাসের জের ধরে গত বছরের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। সেখানে নির্যাতনের পর ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দুইতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনার পর উত্তাল হয়ে ওঠে বুয়েটে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবি ও ক্যাম্পাসে রাজনীতি নিষিদ্ধসহ বিভিন্ন দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। টানা পাঁচ দিন ধরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে ১১ অক্টোবর বুয়েটে সব ধরনের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করা হয়। সেদিন বুয়েটের ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম বুয়েটে ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা করে বলেছিলেন, ‘আমার নিজ ক্ষমতায় বুয়েটের সব রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংগঠনের কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ ঘোষণা করছি। এখন থেকে ছাত্ররাজনীতির সঙ্গে কেউ জড়িত থাকলে ডিসিপ্লিনারি বোর্ডের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ যদিও অন্য সব ছাত্র সংগঠন বুয়েট প্রশাসনের ওই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা না করে তাদের রাজনৈতিক কার্যক্রম তখনই তুলে নিয়েছিল। বুয়েটে কমিটি দে‌য়ার সত্যতা নিশ্চিত করে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা এই কমিটি দিয়েছি। এ ধারা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে। বুয়েট ছাড়াও অন্য তিনটি প্রতিষ্ঠানে আংশিক কমিটি গঠন করেছে ছাত্রদল। প্রতিষ্ঠান তিনটি হলো, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), ইডেন মহিলা কলেজ ও স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ। কমিটির নবনির্বাচিতরা হলেন, বুয়েট শাখার আহ্বায়ক আসিফ হোসেন রচি, যুগ্ম-আহ্বায়ক ফয়সাল নূর, সদস্য সচিব আলী আহমদ, সদস্য নওরোজ রহমান ইমন ও মুসাওয়ার আহমেদ শফিক। ডুয়েট শাখার আহ্বায়ক সোহাগ সরদার, যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ রাসেল, সদস্য সচিব ফজলে রাব্বি খান, সদস্য সুজন ও রাসেল মিয়া। স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ শাখার আহ্বায়ক মেহেদী হাসান সাকিব, যুগ্ম আহ্বায়ক মেহেদী হাসান, যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান, আল আমিন ভূঁইয়া, আফজাল হোসেন, খন্দকার মুয়িদ আদনান, তানভীর হোসেন তুহিন, তানভীর রহমান তন্ময়, বিজয় কুমার সাহা, মোখলেছুর রহমান ও নোমান পারভেজ এবং সদস্য সচিব সাদবিন নেওয়াজ এবং সদস্য এস এম নাঈম। ইডেন মহিলা কলেজ শাখার আহ্বায়ক রেহানা আক্তার শিরিন, যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দা সুমাইয়া পারভীন, যুগ্ম আহ্বায়ক জান্নাতুল ফেরদৌস, সদস্য সচিব সানজিদা ইয়াসমিন তুলি, সদস্য তোহফা মোস্তফা, সদস্য আনিকা চৌধুরী, শিখা আক্তার ও স্বর্ণালী।

Facebook Comments

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ