শনিবার-৩০শে মে, ২০২০ ইং-১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৮:২২, English Version
অাদিতমারীতে করোনা মুক্তদের অানুষ্টানিক বিদায় আদমদীঘিতে দোয়া মাহফিল ও দুস্থ্যদের মাঝে কাপড় বিতরণ প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষনের চেষ্ঠা অভিযোগে যুবক গ্রেফতার জনপ্রতিনিধিদের আরো বেশি সম্পৃক্ত করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ব্যবস্থা: কাদের ট্রেনে ভাড়া বাড়ছে না : রেলমন্ত্রী বিকেল থেকেই অনলাইনে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের টিকিট বিক্রি শুরু

রাসায়নিক দিয়ে পাকানো আম চেনার কৌশল

প্রকাশ: বুধবার, ১৩ মে, ২০২০ , ৯:৫৬ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : লাইফস্টাইল,

এমএন২৪.কম ডেস্ক : আমরা সবাই জানি গ্রীষ্ম হলো ফলের ঋতু। আর এই মৌসুমের সুস্বাদু একটি ফল আম। আম খেতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ কমই আছে। অনেক সময় বেশি লাভের আশায় অপরিপক্ব আম বিক্রি করেন অনেক ব্যবসায়ী। গাছপাকা না হওয়ায় আমগুলো পাকানো হয় কেমিক্যাল বা রাসায়নিক দিয়ে। এতে আমের স্বাদ তো থাকেই না, সেইসঙ্গে এটি শরীরের জন্যও ভীষণ ক্ষতিকর। ক্যালসিয়াম কার্বাইড, অ্যাসিটিলিন গ্যাস, কার্বন-মনোক্সাইডের মতো রাসায়নিকগুলো ব্যবহার করে কাঁচা আম ও অন্যান্য কাঁচা ফল পাকানো হয়। রাসায়নিকগুলো এতটাই ক্ষতিকারক যে, ফলের মাধ্যমে তা শরীরে গেলে ত্বকের ক্যান্সার, কোলন ক্যান্সার, জরায়ুর ক্যান্সার, লিভার ও কিডনির সমস্যা, মস্তিষ্কের ক্ষতির মতো মারাত্মক রোগ হওয়ার ঝুঁকি দেখা যায়।

তাই সবসময় চেষ্টা করুন গাছ পাকা আম খাওয়ার। এ ক্ষেত্রে জেনে নিতে পারেন রাসায়নিকভাবে পাকানো আম চেনার উপায়- * ফলের চেহারা হবে উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয়। * কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো আমের সবদিকটাই সমানভাবে পাকবে কিন্তু গাছ পাকা ফলের সবদিক কখনোই সমানভাবে পাকে না। * রাসায়নিক দিয়ে পাকানো ফলে স্বাভাবিক পাকা ফলের মতো মিষ্টি গন্ধ থাকে না। * প্রাকৃতিকভাবে পাকা ফলের চামড়ার ওপর এক ফোঁটা আয়োডিন দিলে তা গাঁঢ় নীল অথবা কালো বর্ণের হয়ে যাবে। কিন্তু ক্যামিকেল দ্বারা পাকানো ফলে আয়োডিনের রং অপরিবর্তিত থাকে। খাওয়ার ক্ষেত্রে যা করণীয় * ফলের মৌসুমের আগে ফল কিনবেন না। কারণ, সময়ের আগে প্রাপ্ত ফলগুলি ক্যামিকেল দিয়ে পাকানো হয়ে থাকে। * খাওয়ার আগে পানিতে দুই মিনিট ভিজিয়ে রাখবেন। তারপর ভালো করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে খাবেন। * আস্ত ফল সরাসরি খাবেন না।

Facebook Comments

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ