মঙ্গলবার-১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,-রাত ৮:৩৭

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

বরিশাল বিভাগের ৩১টি নৌপথের নাব্যতা বৃদ্ধি করে টেকসই ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হবে                                                                          — নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী পৌর নির্বাচনের প্রচারে মাঠে নেমেছে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমানের ইন্তেকালে তথ্যমন্ত্রীর শোক সংস্কৃতিচর্চা বৃদ্ধি নতুন প্রজন্মকে জঙ্গিবাদ থেকে দূরে রাখবে -তথ্যমন্ত্রী নতুন পরিচয়ে পরীমনি বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান দিলুর মৃত্যুতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর শোক লালপুরে ঘনকুয়াশা ও তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন

হাতীবান্ধায় টাকার জন্য বাবাকে মারধর করে রাস্তা বন্ধ করলেন পূত্র

প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারি, ২০২১ , ৬:১৪ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

মোঃলাভলু শেখ লালমনিরহাট থেকে।১২ জানুয়ারী।
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বাবাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এক পুত্রের বিরুদ্ধে। মারধরের পর মা-বাবার বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তাও বন্ধ করে দিয়েছেন রফিকুল ইসলাম নামে ওই পুত্র। এমন ঘটনাটি ঘটেছে ওই উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নের পশ্চিম সারডুবী গ্রামে। পুত্রের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে বাবা বিচার চেয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও থানায় একাধিকবার অভিযোগ করেও বিচার পায়নি এমন অভিযোগ আব্দুল আজিজের।
অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ওই এলাকার আব্দুল আজিজের ছোট পুত্র রফিকুল ইসলাম ঢাকায় চাকুরী করে প্রতিমাসে বাড়িতে টাকা পাঠাতেন। ওই টাকা বাবা আব্দুল আজিজ ও মা সফিয়া বেগম খরচ করে খেতেন। সম্প্রতি রফিকুল ইসলাম বাড়ি এসে তার পাঠানো টাকা দাবী করলে বাবা-মা’য়ের সাথে পুত্রের দ্বন্ডের সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশও হয়েছে। টাকা ফেরত চেয়ে বিভিন্ন সময় পুত্র রফিকুল ইসলাম তার বাবা আব্দুল আজিজকে মারধর করতেন। এ নিয়ে বাবা আব্দুল আজিজ স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও থানায় লিখিত অভিযোগও করেন। কিন্তু কোনো বিচার পায়নি।
গত ৯ জানুয়ারী পুত্র রফিকুল ইসলাম তার বাবা ও মাকে আবারও মারধর করেন। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান। হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে আব্দুল আজিজ দেখেন তাদের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন পুত্র রফিকুল ইসলাম। পরে আইনী সহযোগিতা চেয়ে সোমবার স্থানীয় থানায় আবারও অভিযোগ করেছেন বাবা আব্দুল আজিজ।
এ বিষয়ে আব্দুল আজিজ- সফিয়া বেগম দম্পতি বলেন, আমরা দীর্ঘ দিন ধরে আমার ছোট ছেলে ও তার বউয়ের মাধ্যমে নির্যাতনের শিকার হচ্ছি। কিন্তু স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও থানায় একাধিকবার অভিযোগ করেও বিচার পায়নি। তবে এ প্রসেঙ্গ পুত্র রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার বাবা আমাকে প্রায় সময় মারধর করেন। তাই আমিও তাকে মেরেছি এবং আমি রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছি। যদি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বলে তাহলে আমি রাস্তা খুলে দিবো।
হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমি নিজেই বিষয়টি দেখভাল করছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments

রাজশাহী,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ