বৃহস্পতিবার-২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-সন্ধ্যা ৬:১৮

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১১৪৪ ফুলবাড়ীতে বেড়েই চলছে জ্বর- সর্দির প্রকোপ  পাঁচবিবির ১৭ জন অসহায় নারীরা পেল জেলা পরিষদের সেলাই মেশিন পাঁচবিবিতে ভাতাভূগীদের নিয়ে হেলথ্ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীাগের সভাপতি মোঃ হায়দার আলী শাহ্ মৃত্যুতে থানা প্রেসকাবের শোক। ফুলবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতির মৃত্যুতে জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের শোক। ফুলবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতির চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু ॥

ফুলবাড়ীতে ধরলার তীর সংরক্ষণ বাধ প্রকল্পে অবৈধ ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চলছে।

প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ, ২০২১ , ১০:৪৫ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :
ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা ঃ
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে ধরলা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের জিও ব্যাগ ভর্তি করছে ঠিকাদাররা। নদীর তলদেশে ডিজাইন লেবেলিংয়ের নামে নিয়মবর্হিভুত ভাবে বাধ নির্মানের স্থানেই ড্রেজার মেশিন বসানোয় ভবিষ্যতে এ প্রকল্পের স্থায়ীত্ব নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে চরম সংশয় দেখা দিয়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কুড়িগ্রাম অফিসের বাস্তবায়নে ৫৪ কোটি ৫০ লাখ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে ধরলা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধসহ বাম ও ডান তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের কাজ মার্চ/২১ মাসে শুরু হয়। উপজেলার সোনাইকাজী এলাকা থেকে সাহেববাজার পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার দীর্ঘ এ বাধটি নির্মানের জন্য আলাদা ভাবে পাঁচটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নিয়োজিত করে কর্তৃপক্ষ। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে ধরলানদী তীরবর্তী হাজার হাজার মানুষ ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাবে। বন্যার কবল থেকে বেঁচে যাবে ধরলার তীরবর্তী হাজার হাজার বিঘা জমির ফসল। জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে ধরলার দুই তীরবর্তী হাজারও মানুষের।
কিন্তু এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রকল্পের ঠিকাদাররা বাধ নির্মানের স্থানে একাধিক অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন করে জিও ব্যাগ ভর্তি করছে। এতে নদীর তলদেশে সৃষ্টি হচ্ছে বিশাল বিশাল গর্ত। বন্যার সময় বাধ ভেঙ্গে বস্তা, ব্লক ড্রেজার মেশিনের সৃষ্ট গর্তে চলে যাওয়ার আশংকা করছেন তারা।
সোনাইকাজী গ্রামের বাসিন্দা শাহজালাল, মজিবর ও নুরল হক জানান, ড্রেজার মেশিন দিয়ে নদীর তলদেশ সমান হয় এটা কোনদিনও শুনি নাই । সে জন্য যে জায়গায় বাধ হবে, সেখান থেকে বালু তুলতে নিষেধ করা হয়েছে। কিন্তু তা উপেক্ষা করে ঠিকাদারের লোকজন ড্রেজার মেশিন দিয়ে দিনরাত বালু তুলে বস্তা ভর্তি করছে। এভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু তুলে গর্ত করলে বন্যার সময় সমস্ত বস্তা, ব্লক ও সরকারের কোটি কোটি টাকা ওই গর্তে চলে যাবে ।
ড্রেজার মেশিনের মালিক শহিদুল ইসলাম জানান, বালু তুলে ১৫ শ টাকা হাজার দরে ঠিকাদারের কাছে বিক্রি করছি। প্রশাসনের বিষয় ঠিকাদাররা দেখবে।
২নং সাইডের ঠিকাদার দাবীকারী মইনুল হক জানান, ইস্টিমেটে না থাকলেও শ্যালো মেশিন দিয়ে বালু তুললে তেমন কোন ক্ষতি হবে না।
এ প্রসঙ্গে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোডের্র নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম বলেন, নদীর তলদেশে ডিজাইন লেবেল করতে যতটুকু খনন করা প্রয়োজন ততটুকু করতে পারবে। কিন্তু ড্রেজিং মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে জিও ব্যাগ ভর্তি করার নিয়ম আছে কিনা তা প্রশ্ন করা হলে, তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান।

 


রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_