সোমবার-১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ৯:৪৭

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

হাতিবান্ধায়বৃদ্ধের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  কোয়ারেন্টাইন শেষে বাড়ি ফিরে ভারতফেরত দম্পতির করোনা শনাক্ত নতুন শিল্প সচিব হিসেবে যোগদান করেছেন জাকিয়া সুলতানা শেখ হাসিনার নাম চির ভাস্বর হয়ে থাকবে : ওবায়দুল কাদের মাথাপিছু আয় বাড়ল ১৬৩ ডলার নিজেদের তৈরি সুপার কম্পিউটার উন্মোচন করল ইরান আর্জেন্টিনা দলে ফিরলেন আগুয়েরো, জায়গা হয়নি দিবালার

প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শেষ ৮ মে, পরীক্ষা ১২ জুন

প্রকাশ: রবিবার, ২ মে, ২০২১ , ৬:৪২ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে দেশের তিনটি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন চলমান রয়েছে। গত ২৪ এপ্রিল (শনিবার) থেকে চলা আবেদন প্রক্রিয়া চলবে আগামী ৮ মে (শনিবার) পর্যন্ত। আর একযোগে এ গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১২ জুন।

আগামী ২ জুন ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদনের যোগ্যতা ও অন্যান্য শর্তাবলি উপরোক্ত ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে। এছাড়া ভর্তিচ্ছুরা https://www.admissionckruet.ac.bd/ লিংকের মাধ্যমে প্রকৌশল গুচ্ছ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।

এ গুচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় রয়েছে- চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট), খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট)। এই তিনটি বিশ্ববিদ্যালয় এবার গুচ্ছ পরীক্ষার আয়োজন করছে।

 

আবেদন ফি :

তিন বিশ্ববিদ্যালয়ে সব মিলিয়ে মোট তিন হাজার ২০১ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। আবেদনকারীদের ‘ক’ গ্রুপে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ এবং নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগে ৯০০ টাকা ফি দিয়ে প্রাথমিক আবেদন করতে হবে। আর ‘খ’ গ্রুপে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ, নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা এবং স্থাপত্য বিভাগের এক হাজার টাকা ফি দিয়ে আবেদন করতে হবে।

আসন সংখ্যা : 

এবার চুয়েটে সংরক্ষিত ১১টি আসনসহ মোট ৯০১টি, কুয়েটে সংরক্ষিত পাঁচটি আসনসহ ১ হাজার ৬৫ এবং রুয়েটে সংরক্ষিত পাঁচটিসহ ১ হাজার ২৩৫টি আসন রয়েছে। মেধা তালিকায় চুয়েটে ৮৯০টি, কুয়েটে ১ হাজার ৬০টি এবং রুয়েটে ১ হাজার ২৩৫টি আসন রয়েছে।

পরীক্ষার বিষয় ও মানবন্টন :

এবারের ভর্তি পরীক্ষায় সাধারণ প্রকৌশল বিভাগসহ এবং নগর ও পরিকল্পনা বিভাগ অর্থাৎ গ্রুপ ‘ক’তে এমসিকিউ পদ্ধতিতে ৫০০ নাম্বার। আর প্রকৌশলের পাশাপাশি স্থাপত্য বিভাগ নিয়ে গ্রুপ ‘খ’তে ৭০০ নাম্বারের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

‘ক’ গ্রুপে গণিত (উচ্চতর) ১৫টি প্রশ্ন ১৫০ নাম্বার পদার্থবিজ্ঞান ১৫ টিতে ১৫০ এবং রসায়ন ১৫ টিতে ১৫০ এবং ইংরেজি বিষয়ে ৫টি প্রশ্নের জন্য ৫০ নাম্বার নিয়ে মোট ৫০০। এদিকে গ্রুপ ‘খ’ তে উপরিউক্ত প্রশ্নের সাথে মুক্তহস্ত অংকন ২০০ নাম্বার নিয়ে মোট ৭০০ নাম্বারের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষায় আবেদনের ভিত্তিতে সারাদেশ থেকে সেরা ৩০ হাজার আবেদন গ্রহণ করা হবে। আবেদনের যোগ্যতা হিসেবে ২০১৭ অথবা ২০১৮ সালে মাধ্যমিক কিংবা সমমানে সর্বনিম্ন জিপিএ ৪.০০ এবং উচ্চ মাধ্যমিকে উচ্চতর গণিত, পদার্থবিজ্ঞান,রসায়ন ও ইংরেজিতে আলাদা আলাদাভাবে জিপিএ ৫.০০ নিয়ে মোট গ্রেড ২০.০০ থাকতে হবে।


শিক্ষা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_