মঙ্গলবার-২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ১১:৩১

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

এনআইডি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু জিম্বাবুয়ে সফরের আগে বাংলাদেশের জন্য বড় দুঃসংবাদ ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার না হলে ‘হরতাল’ করোনার টিকাকে বিশ্বব্যাপী সাধারণ পণ্য ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর শিবগঞ্জে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে পন্ড হলো জুয়ার আসর  শেরপুরে আনসার ভিডিপির বৃক্ষরোপন উদ্বোধন এসএসসি-এইচএসসির বিষয়ে সিদ্ধান্ত শিগগিরই: শিক্ষামন্ত্রী

মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন : ৩০ মে, ১৯৭১

প্রকাশ: রবিবার, ৩০ মে, ২০২১ , ৬:৩২ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটনা নিয়ে ‌’মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন’ নামের এই আয়োজন। এবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কম পাঠকদের জন্য মুক্তিযুদ্ধের আজকের দিনে (৩০ মে) ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনার বিবরণ তুলে ধরা হল-

  • বেসামরিক প্রশাসনের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে চান বলে পাকিস্তানের করাচিতে প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খানের দেওয়া বিবৃতির প্রতিক্রিয়া জানান স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র, ত্রাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী এ এইচ এম কামারুজ্জামান। ৩০ মে দেওয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ইয়াহিয়া খানের কোনো কথাই বিশ্বাসযোগ্য নয়। মার্চ মাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে আলোচনায় যে মতৈক্য হয়, ইয়াহিয়া খান তা ঘোষণা করতে রাজি হয়েছিলেন। কিন্তু এর বদলে তিনি বাঙালি জাতিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দেন। তাঁর কথা তাই মোটেই বিশ্বাসযোগ্য নয়।
  • কামারুজ্জামান বলেন, ৯৮ শতাংশের বেশি মানুষ আওয়ামী লীগকে সমর্থন করেছে। তাদের সরকারকে প্রশ্ন বা বিচার করার অধিকার মানুষ তাদের দেয়নি।
  • ব্রিটেনের ম্যানচেস্টারে বাংলাদেশের সমর্থনে এক সভায় বক্তব্য দেন বাংলাদেশ সরকারের বিশেষ দূত বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী। এর আগের দিন তিনি নিউইয়র্ক থেকে লন্ডনে ফিরে এই সভায় যোগ দেন।
  • সভায় বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী ২৫ মার্চ রাত থেকে বাংলাদেশে সংঘটিত ঘটনাবলির বিবরণ দেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বাঙালিদের সংগঠন ও কর্মতৎপরতার কথাও উল্লেখ করেন। শ্রোতারা ‘জয় বাংলা’ ও ‘শেখ মুজিবের মুক্তি চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতাসংগ্রামের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন।
  • সুইডেনের সব রাজনৈতিক দল যুক্তভাবে পূর্ব পাকিস্তানে নির্বিচার হত্যাকাণ্ড বন্ধ করার আহ্বান জানায়। বাংলাদেশের নির্যাতিত জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার অর্জনে তারা অকুণ্ঠ সমর্থন জ্ঞাপন করে।
  • ইন্দোনেশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পার্লামেন্টের স্পিকার জাইচেক বিশ্ব মুসলিম সমাজের কাছে বাংলাদেশকে সহায়তার আবেদন জানান। তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যতম প্রধান মুসলিম রাষ্ট্রের কর্ণধারেরা পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ অধিবাসীর স্বাধীনতার দাবি উপেক্ষা করতে পারেন না।
  • যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর এডওয়ার্ড কেনেডিসহ কয়েক প্রভাবশালী সিনেটর বাংলাদেশের জনগণের প্রতি তাঁদের সমর্থন ঘোষণা করে এদিন সিনেটে বলেন, পাকিস্তানের সামরিক সরকার বাংলাদেশে যে গণহত্যা চালাচ্ছে, তাকে সমর্থন করার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটের বৈদেশিক সাহায্যসম্পর্কিত কমিটিও এই দিন পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দেয়।
  • ভারতের কেন্দ্রীয় পুনর্বাসনমন্ত্রী রঘুনাথ কেশব খাদিলকর দিল্লিতে বলেন, বাংলাদেশের শরণার্থীর সংখ্যা ৪০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। পশ্চিমবঙ্গের শরণার্থীশিবিরগুলোতে কলেরা রোগ মোকাবিলার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার দ্রুত সচেষ্ট হচ্ছে।
  • গান্ধী শান্তি প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান আর আর দিবাকর পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁ সীমান্তে শরণার্থীশিবির পরিদর্শন করেন এবং বাংলাদেশ থেকে আসা শরণার্থীদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।
  • এই দিন মুক্তিবাহিনী বেশ কয়েকটি সফল অভিযান পরিচালনা করে। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের চৌদ্দগ্রাম-মিয়ারবাজার সড়কে মুক্তিবাহিনীর চতুর্থ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ‘বি’ কোম্পানির এক প্লাটুন যোদ্ধা পাকিস্তান সেবাহিনীর ২৭ জনের একটি দলকে অ্যামবুশ করেন। এ অভিযানে তিনজন পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়।
  • মুক্তিবাহিনীর আরেকটি গেরিলা দল কুমিল্লার গোমতী বাঁধের ওপর থেকে বিবিবাজারে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর অবস্থানে আঘাত হানে। এতে পাকিস্তানি বাহিনীর কয়েকজন সেনা হতাহত হয়। এ ছাড়া মুক্তিবাহিনীর একটি মর্টার প্লাটুন সিঙ্গারবিলের অবস্থানে অতর্কিত আক্রমণ চালালে পাকিস্তানি বাহিনীর বেশ কয়েকজন হতাহত হয়।
  • পাকিস্তান সরকার ভারত থেকে প্রত্যাবর্তনকারী পাকিস্তানি উদ্বাস্তুদের জন্য অভ্যর্থনা শিবির খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। পাকিস্তান সরকার বাংলাদেশ সম্পর্কে অপপ্রচার করে বলে, বাংলাদেশ সরকার এবং এর সামরিক হাইকমান্ডের মধ্যে বিরোধ দেখা দিয়েছে। এরা অচিরেই নিঃশেষ হয়ে যাবে।
  • পটুয়াখালী জেলা সামরিক আইন প্রশাসকের নির্দেশে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একটি দল ৩০ মে দ্বিতীয় দিনের মতো বরগুনা জেলখানায় বন্দী ১৭ জন বাঙালিকে হত্যা করে।

সূত্র: বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ: সেক্টরভিত্তিক ইতিহাস, সেক্টর দুই; মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসী বাঙালি: যুক্তরাজ্য, আবদুল মতিন, সাহিত্য প্রকাশ; আজাদ ও দৈনিক পাকিস্তান, ৩১ মে ১৯৭১; আনন্দবাজার পত্রিকা ও যুগান্তর, ভারত, ৩১ মে ১৯৭১

এবিএন


মুক্তিযুদ্ধ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_