শুক্রবার-২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ৩:১৯

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

চার্জার ভ্যান চালকের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার নাটোরে নদীতে ঝাঁপ দেয়ার ৫ ঘন্টা পর অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার নতুন করারোপ ছাড়ায় সাড়ে ৮৭ কোটি টাকার বাজেটের প্রস্তুতি। ফুলবাড়ীতে যুবলীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন ডোমারে ৮ জন করোনায় আক্রান্ত লালমনিরহাট মৎস্য বিভাগে ৩.৭৩৯ হেক্টর  পুকুর -জলাশয় পুনঃখনন ও ১৯ মেট্রিক টন মাছ উৎপাদনের সম্ভাবনা  আশাশুনিতে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু নিহত

লালমনিরহাটে নতুন চাউল হাট-বাজারে উঠলেও কমেনি দাম

প্রকাশ: শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১ , ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :
মোঃলাভলু শেখ লালমনিরহাট থেকে। লালমনিরহাটের হাট-বাজারে নতুন চাউল উঠতে শুরু করলেও দাম কমেনি। বাজার দর অপরিবর্তিত থাকায় হতাশা প্রকাশ করেছেন সাধারণ ভোক্তারা। আগের দামেই চাউল বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছে খোদ ব্যবসায়ীরা। লালমনিরহাটের হাট-বাজার ঘুরে জানা গেছে, ভারত থেকে আমদানি করা ২৫কেজি ওজনের প্রতি বস্তা চাউল ১হাজার ১শত ২৫টাকা ও নতুন চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা চাউল ২হাজার ১শত টাকা বিক্রি হচ্ছে। লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার খুচরা চাউল বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, নতুন চাউল এখনও সেভাবে বাজারে ওঠেনি, তাই চাউলের দাম এখনও কমেনি। নতুন চাউল বাজারে আরও বেশি উঠলে দাম কমতে পারে। লালমনিরহাটের চাউল ব্যবসায়ী মোসলেম দেওয়ান সাংবাদিকদের জানান, ভারতের আমদানি করা চাউল ২৫কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ১হাজার ১শত ২৫টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ চাউল কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪৫টাকায়। দেশীয় চিকন স্বর্ণা চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ২হাজার ৪শত ৫০ ও মোটা চাউল ২হাজার ১শত ৫০টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তিনি আরও জানান, নতুন ধানের মোটা চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ২হাজার ১শত টাকা ও চিকন চাউল ২হাজার ৪শত টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এতে প্রতি কেজি চাউলের দাম পড়ছে যথাক্রমে ৪২টাকা ও ৪৮টাকা। লালমনিরহাট সদর উপজেলার মেসার্স ভাই ভাই রাইস এজেন্সির প্রোঃ আব্দুল লতিফ সাংবাদিকদের জানান, ভারত থেকে চাউল আমদানির তেমন সুযোগ পাননি এ জেলার বড় চাউল ব্যবসায়ীরা। চাউল আমদানির বৈষম্য কমিয়ে আনা গেলে বাজারে চাউলের দাম কেজিতে ২ থেকে ৩টাকা কমবে। লালমনিরহাট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আব্দুল হামিদ বাবু সাংবাদিকদের জানান, ২৫হাজার টন চাউল আমদানির অনুমতির জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু প্রথম দফায় ১হাজার টন ও দ্বিতীয় দফায় ১হাজার টন চাউল আমদানির অনুমতি পেয়েছি। নতুন চাউল বাজারে এলে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির উন্নতি হবে। তিনি আরও জানান, অন্যান্য জেলার মতো চাউল আমদানির সুযোগ পেলে হয়তো রংপুর অঞ্চলে চাউলের বাজার অস্থিতিশীল হওয়ার সুযোগ থাকত না। আগামীতে এসব বিষয় মাথায় রেখে চাউল আমদানির বরাদ্দের দাবি জানান তিনি। লালমনিরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামীম আশরাফ সাংবাদিকদের জানান, নতুন ধান কেবল উঠতে শুরু হয়েছে। এক সপ্তাহ পর পর্যাপ্ত ধান-চাউল বাজারে সরবরাহ হলে হয়তো চাউলের দাম কিছুটা কমতে পারে বলে আশাবাদী।


অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_