মঙ্গলবার-২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ১০:২৭

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

এনআইডি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু জিম্বাবুয়ে সফরের আগে বাংলাদেশের জন্য বড় দুঃসংবাদ ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার না হলে ‘হরতাল’ করোনার টিকাকে বিশ্বব্যাপী সাধারণ পণ্য ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর শিবগঞ্জে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে পন্ড হলো জুয়ার আসর  শেরপুরে আনসার ভিডিপির বৃক্ষরোপন উদ্বোধন এসএসসি-এইচএসসির বিষয়ে সিদ্ধান্ত শিগগিরই: শিক্ষামন্ত্রী

গৌরনদীতে জোড়া লাগানো জমজ কন্যা শিশুর জন্ম

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১ , ১:০২ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

মনির হোসেন বরিশাল  ॥ বরিশালের গৌরনদী পৌর সদরের একটি বেসরকারি ময়ূরী কিনিকে পেটে জোড়া লাগানো জমজ কন্যা শিশুর জন্ম হয়েছে। তবে তাদের হাত, পা মুখ মাথা আলাদা ও স্বাভাবিক রয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরনদীর ময়ূরী কিনিকের চিকিৎসক ডাক্তার তানজিদ রহমান জানান, বুধবার দুপুরে সফল অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে তিনি জোড়া লাগানো জমজ শিশু ভূমিষ্ঠ করান। তবে গৌরনদীতে শিশু দু’জনের সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ার শঙ্কায় সন্ধ্যায় তাদের বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তবে জন্মের পর থেকে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত (রাত সাড়ে এগারোটা) নবজাতক দু’শিশুই সুস্থ্য রয়েছে বলে জানিয়েছেন তাদের পিতা আবু জাফর। নবজাতকের পিতা আবু জাফর জানান, শিশুদ্বয়ের সাথে সাথে সিজারিয়ানের পর আমার স্ত্রী হালিমা বেগমও সুস্থ্য রয়েছেন। তবে গৌরনদীতে জোড়া লাগানো জমজ শিশু দু’জনের সঠিক চিকিৎসা হবেনা বলে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশু দু’শিশুর এখনও কোন নাম রাখা হয়নি।
শেবাচিম হাসপাতালের নবজাতক ওয়ার্ডের দায়িত্বরত চিকিৎসক সৌরভ জানান, ভর্তি হওয়া নবজাতক দু’জন এখন পর্যন্ত সুস্থ্য রয়েছে। অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে জোড়া লাগানো শিশু দেশে আলাদা করা হয়। তবে বরিশালে এ ধরণের অপারেশন হয় না, এজন্য শিশু দু’টিকে ঢাকায় নিতে হবে।
শেবাচিমে বিগত তিন বছরের মধ্যে এমন নবজাতক এই প্রথম ভর্তি করার দাবি করে ডাক্তার সৌরভ বলেন, শীঘ্রই শিশুদ্বয়কে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে।
নবজাতকের পিতা আবু জাফর জানান, তাদের বাড়ি বরিশালের মুলাদী উপজেলার বাটামারা ইউনিয়নের সেলিমপুর গ্রামে। তার সংসারে আরও দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। জীবিকা নির্বাহের জন্য তিনি পুরান ঢাকায় মুদি দোকান চালাতেন। কিন্তু করোনার কারণে ক্রেতা কমে যাওয়া এবং ক্রেতারা পাওনা টাকা পরিশোধ না করায় তার মুদি দোকান বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে তিনি ঢাকায় ভ্যানগাড়ি চালিয়ে পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করছেন। আবু জাফর আরও বলেন, ভূমিষ্ঠ হওয়ার আমার সন্তান দুটি বাঁচাতে হলে অপারেশন করাতে হবে। এই অপারেশন ব্যয়বহুল বলে শুনেছি। আমার একার পে তা সম্ভব নয়।


বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_