রবিবার-২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১০ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ১০:১৩

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ সৈয়দপুর করোনা রোগীর মৃত্যু লালপুরে নতুন করে একদিনে আরো ৫৮ জন করোনায় আক্রান্ত! শিবগঞ্জে খোলা বাজারে চাল ও আটা বিক্রয় শুরু  ডোমারে খোলা বাজারে ওএমএস এর চাল ও আটা বিক্রয়ের শুভ উদ্বোধন। পার্বতীপুরে খোলা বাজারে চাল-আটা বিক্রি শুরু সংক্রমণ বাড়তে থাকলে হাসপাতালে জায়গা হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী নন্দীগ্রামে ওএমএস’র বিশেষ কার্যক্রম উদ্বোধন

ঝিনাইগাতীতে ইউনিয়ন  পরিষদের রাস্তা বন্ধ করে বিল্ডিং নির্মানের  অভিযোগ : দাপ্তরিক কর্মকান্ড ব্যাহত 

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১ , ২:১৮ অপরাহ্ণ , বিভাগ :
 মুহাম্মদ আবু হেলাল, শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরের  ঝিনাইগাতী উপজেলার  হাতীবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে বিল্ডিং নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। ফলে ইউনিয়ন পরিষদের  সকল কর্মকান্ড মারাত্মকভাবে  ব্যাহত হচ্ছে।
 ইউনিয়ন পরিষদ সুত্রে জানা যায়,  ২০০৫ সালে এ ইউনিয়ন পরিষদ ভবনটি  নির্মাণ করা হয়। পরিষদের ভবনটি নির্মাণের আগে পরিষদে যাতায়াতের রাস্তার জন্য ঘাগড়া লস্করপাড়া গ্রামের মৃত রহিজ উদ্দিনের ছেলে  মো. আব্দুর রহিম ও আব্দুর রাজ্জাক সাবকবলা  দলিলমুলে ২৫ শতাংশ জমির মধ্যাংশে থেকে ৪ শতক জমি করে দেন । একই ভাবে মৃত ইসরাফিল খানের  ছেলে মো. বেলাল হোসেন খানগংরা ১৯৯৬সালে ২ শতাংশ  জমি লিখে দেন। কিন্তু ওই দলিলে জমির  স্থান  উল্লেখ  করা হয়নি।   এনিয়ে ঝামেলায় পরে ইউনিয়ন পরিষদ ।
 স্থানীয়ারা জানায়, বর্তমানে ওই জমির দাম বেড়ে যাওয়ায় দাতা বেলাল গংরা   পরিষদে যাতায়াতের জন্য জমি দান করলেও এখন তা দিতে নারাজ। বিগত নির্বাচনে  জমি দাতা বেলাল হোসেন ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। এসময়  চেয়ারম্যান নির্বাচিত  হন  শামছুল হক। তারা উভয়েই দায়িত্ব পাওয়ার পর পরিষদের রাস্তাটি নির্মানের  জন্য একটি  প্রকল্পও  বরাদ্দ করান। জমিদাতা হিসাবে  ইউপি সদস্য বেলাল হোসেনের দাবী   রাস্তা নির্মান কাজটি তিনিই করবেন। কিন্তু ইউপি চেয়াররম্যান শামছুল হক কাজটি  বেলালকে   না দিয়ে তিনি নিজেই কাজ শুরু করেন এবং ইউনিয়ন পরিষদের ভবনের সন্মুখ থেকে সোজাসুজি ভাবে মাটি ভরাটের কাজও  শুরু করেন। রাস্তাটির  বেশির ভাগ জায়গাতে মাটি ভরাটের  পর বাঁধ সাজেন  বেলাল মেম্বার ও তার অন্যান্য ভাইয়েরা।   এতে   ভেস্তে যায় ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা নির্মাণ কাজ।
 জানা গেছে, বেলাল ও তার লোকজন রাস্তার সামনে ওই জমির উপর বিল্ডিং নির্মাণ করে যাতায়াতের পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন।  আবার  ওদের মধ্যে কেউ কেউ রাস্তার উপর খড়ের পালা দিয়ে রাস্তাটি বন্ধ করে রেখেছেন।  এতে  রাস্তার অভাবে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে লোকজন যাতায়াত করতে পারছেন না।  ফলে চরম  দুর্ভোগ পোহাতে  হচ্ছে সেবাদানকারী ও  ইউনিয়ন পরিষদের  সেবা গ্রহিতাদের।
 এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান বা উপজেলা প্রশাসন থেকে জেলা প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের বিষয়টি  অবহিত করা হলেও প্রয়োজনীয় উদ্যোগের অভাবে নির্মিত  হচ্ছেনা ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা।
 এ ব্যাপারে হাতীবান্ধা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আলী আকবর জানান, পরিষদের রাস্তা না থাকায় পরিষদের নামে বরাদ্দকৃত মালামাল আনা নেওয়া করতে  ব্যায় বেশী হওয়ার পাশাপাশি যাতায়াত করতে গিয়েও নানান ভোগান্তির শিকার হতে হয়।তিনি বলেন, ইতিপুর্বে যারা  চেয়ারম্যানগণ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তারা এ  সমস্যা সমাধানের কোন উদ্যোগ নেননি।  ফলে নানা  সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।
জমিদাতা সাবেক ইউপি সদস্য বেলাল বলেন, আমরা ইউনিয়ন পরিষদের নামে জমি দিয়েছি একথা অস্বীকার করছি না। তিনি বলেন, রাস্তাটি অন্যদিক থেকে দেয়া হবে।
 উপজেলা নিবাহী অফিসার ( ইউএনও) ফারুক আল মাসুদ বলেন, সবেমাত্র আমি এ উপজেয়া যোগদান করেছি। আমি চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে রাস্তার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবো।

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_