মঙ্গলবার-২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-সকাল ১০:৫৫

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ কুষ্টিয়া হাসপাতালে আরও ১৯ জনের মৃত্যু শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে আরও ১৬ জনের মৃত্যু নারকেল তেলের ৫টি জরুরি ব্যবহার ম্যানসিটিতে যোগ দিচ্ছেন হ্যারি কেইন! মৌলভীবাজারে কঠোর বিধিনিষেধের চতুর্থ দিনে ১৩৮ ব্যক্তিকে ৭৬ হাজার ৮০০ টাকার অর্থদন্ড নোয়াখালীতে করোনায় আজও ২ জনের মৃত্যু,নতুন শনাক্ত ২২১ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে উড়িয়ে সিরিজ জিতল অস্ট্রেলিয়া

ডেটা সায়েন্স নিয়ে ৩টি প্রোগ্রাম নিয়ে এসেছে ভ্যালু বেজ

প্রকাশ: সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১ , ১০:০২ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: তথ্য-প্রযুক্তির উৎকর্ষতার এই যুগে ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে ডেটা সায়েন্স নিয়ে তিনটি প্রোগ্রাম শুরু করতে যাচ্ছে দেশের লিডিং ডেটা ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান ভ্যালু বেজ একাডেমি। আগামী ২৮ জুলাই প্রোগ্রাম তিনটি উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে।

ডেটা সায়েন্সের প্রোগ্রাম তিনটি হচ্ছে- অ্যানালিটিক্স ও বিআই ইঞ্জিনিয়ারিং, ডেটা ইঞ্জিনিয়ারিং ও অ্যাপ্লাইড ডেটা সায়েন্স অ্যান্ড এমএল ইঞ্জিনিয়ারিং।

তত্ত্বগত ও ব্যবহারিক প্রশিক্ষণের পাশাপাশি ডেটার মাধ্যমে কীভাবে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নির্ধারণ হতে পারে এবং প্রতিষ্ঠান কীভাবে লাভবান হতে পারে সে বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ ধারণা দেওয়া হবে প্রোগ্রামগুলোতে।

প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রত্যেকটি প্রোগ্রামই অনলাইনে গুগল মিটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। তাই যেকোনো জায়গা থেকেই ক্লাসে যোগদান করা যাবে।

প্রোগ্রামগুলোতে যেহেতু ডেটা সায়েন্সের প্রাথমিক ধারণা থেকে শুরু করে ধীরে ধীরে গভীরে যাওয়া হবে তাই যে কেউ এতে অংশ নিতে পারবে।

তাছাড়া সহজেই যেন আগ্রহীরা ডেটা সায়েন্সের সঙ্গে নিজেকে এগিয়ে নিতে পারে, সেজন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয় উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।

অ্যানালিটিক্স এবং বিআই ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামটি মূলত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে যারা মিড লেভেল বা উচ্চ পর্যায়ে কর্মরত আছেন তাদের জন্য।

এছাড়াও অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট, ডেটা অ্যানালিস্ট, কোয়ান্টিটেটিভ অ্যানালিস্ট এবং আর্থিক খাতে চাকরি করতে আগ্রহী সকল শিক্ষার্থীর জন্য এই প্রোগ্রামটি উপযুক্ত।

বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে ডেটা কীভাবে সিদ্ধান্ত নিতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে তা শেখানো হবে এই প্রোগ্রামে। ডেটার মাধ্যমে কীভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তাত্ত্বিক জ্ঞানের পাশাপাশি রিয়েল টাইম প্রজেক্টের মাধ্যমে তা দেখানো হবে।

এই প্রোগ্রামটির মেয়াদ কমপক্ষে দুই মাস, যেখানে ১৬-২০ টি ক্লাস নেওয়া হবে। ইন্টারমিডিয়েট লেভেলে এই প্রোগ্রামে ভর্তি ফি ৩০ হাজার টাকা।

ডেটা সংক্রান্ত প্রযুক্তিগত জ্ঞান অর্জনে আগ্রহীদের জন্য মূলত ডেটা ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামটির ডিজাইন করা হয়েছে। প্রোগ্রাম শেষে একজন শিক্ষার্থী ডেটা মডেল ডিজাইন, ডেটা ওয়্যারহাউজ তৈরি, ডেটা সংগ্রহ প্রক্রিয়া অটোমেশন করাসহ বিশাল বিশাল ডেটা সেটে কাজ করতে হয় তা শিখতে পারবেন। এই প্রোগ্রামের মেয়াদকাল ধরা হয়েছে কমপক্ষে ৩ মাস বা ২৫-৩০ ক্লাস। এই প্রোগ্রামে এনরোল হওয়ার জন্য ফি ধরা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা।

অ্যাপ্লাইড ডেটা সায়েন্স অ্যান্ড এমএল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামটি ওপরের দুটি প্রোগ্রামের সমন্বয়ে ডিজাইন করা হয়েছে। এই প্রোগ্রামটি যারা ডেটা ম্যানিপুলেশন, ভিজুয়ালাইজেশন, ডেটা বিশ্লেষণ, মেশিন লার্নিং এবং ডেটা সায়েন্স সম্পর্কে গভীর জ্ঞান অর্জন করতে চান তাদের জন্য। ৫ মাস দীর্ঘ এই প্রোগ্রাম ৪০-৪৫টি ক্লাসে ভাগ করা হয়েছে। এই প্রোগ্রামে ভর্তি ফি ৮০ হাজার টাকা।

প্রোগ্রামগুলোতে ভর্তির জন্য প্রথমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠান থেকে যোগাযোগ করে আপনার ভর্তি নিশ্চিত করা হবে। আবেদনের ঠিকানা: https://www.academy4value.com/apply বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করতে পারেন https://www.academy4value.com/.

প্রোগ্রামের লিড ইনস্ট্রাক্টর জুয়েল রানা প্রোগ্রামগুলো প্রসঙ্গে বলেন, আগামী দিনের ব্যবসা-বাণিজ্যে মূল নিয়ামক হবে ডেটা। বর্তমানে যেসব প্রতিষ্ঠান ডেটা ড্রাইভেন সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে তারা ২০-২৫ শতাংশ বেশি লাভ করতে পারছে। এর কারণ তারা ডেটা বিশ্লেষণের মাধ্যমে যথাযথ সিদ্ধান্ত নিতে পারে ঠিক কোথায় কি করতে হবে।

তিনি বলেন, আগামী দিনে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে ডেটা বিশ্লেষণের মাধ্যমেই নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। বাংলাদেশেও কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে ডেটা কাজে লাগানো শুরু করেছে। সামনের দিনের ডেটা বিশ্লেষক, ডেটা সায়েন্টিস্টসহ এই বিভাগে প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল তৈরি করার লক্ষ্য নিয়েই আমাদের প্রোগ্রামগুলো সাজানো হয়েছে।

জুয়েল রানা আরও বলেন, আমরা গতানুগতিক কোনো প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের মতো কাজ করছি না। আমাদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে যেন প্রকৃত অর্থেই কেউ শিখতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে কাজ করা ট্রেইনার আমাদের রয়েছেন যারা আন্তরিকতার সঙ্গে ডেটার বিভিন্ন টেকনিক্যাল টার্মগুলো সময় নিয়ে বুঝিয়ে দিয়ে থাকেন।

তিনি আরও জানান, প্রোগ্রামের লক্ষ্য ডেটা সায়েন্সের সঙ্গে জড়িত পেশায় আছেন এমন ডেটা সায়েন্টিস্ট, ডেটা ইঞ্জিনিয়ার, ব্যাকএন্ড ইঞ্জিনিয়ার, ডেটা সায়েন্স ম্যানেজার, বিজনেস ইনসাইট ডেভেলপারদের, ডাটাবেজ অ্যাডমিন, ম্যানেজার এবং কোম্পানি ম্যানেজারদের মধ্যে ডেটা সায়েন্সের ব্যাবহারিক দক্ষতা গড়ে তোলা।


তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_