বৃহস্পতিবার-২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ৮:৪৮

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ শ্রীমঙ্গলে করোনা আক্রান্ত হয়ে ভাই বোনের মৃত্যু শ্রীমঙ্গলে রাজাপুর গ্রাম থেকে গুইসাপ উদ্ধার, পরে বনে অবমুক্ত ডোমারের চিলাহাটি রেলষ্টেশন ট্রাইলে ভারতীয় ২টি পাওয়ার ইঞ্জিন। সুজানগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার টিকা গ্রহীতাদের উপচেপড়া ভীড় আদমদীঘিতে ২২ মামলায় মোটরসাইকেল চালকের ৮১ হাজার টাকা জরিমানা সৈয়দপুরে পারিবারিক কলহে হারপিক খেয়ে তিন সন্তানের জনকের আত্মহত্যা নন্দীগ্রামে ওএমএস’র চাল ও আটা বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন

সাভারের ‘সাধু’র দাম ১৫ লাখ টাকা

প্রকাশ: রবিবার, ১১ জুলাই, ২০২১ , ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  কোরবানির ঈদে সাভার উপজেলার বিভিন্ন খামার ও ব্যক্তিগতভাবে বিক্রির জন্য প্রস্তুত করা গরুর তালিকায় সেরা গরু হিসেবে প্রথম স্থানে রয়েছে আশুলিয়ার জিরাবো কলেজরোড এলাকার ‘সাধুর’ নাম।

নিজের খামারের গরু থেকে জন্ম নেয়া বাচ্চাদেরকে সঠিক পরিচর্যা ও খাবার দিয়ে বড় করে তুলেছেন এলাকার দেওয়ান ডেইরি ফার্ম এন্ড এগ্রোর মালিক মো. কামাল দেওয়ান।

এরই একটি গরুর নাম রাখা হয়েছে সাধু। অত্যন্ত শান্তশিষ্ট হওয়ায় এর পরিচর্যাকারী সাধু নিজের নামের সাথে মিল রেখেই সাধুর নামকরণ করেন।

‘সাধু’ সাভার উপজেলার সেরা গরু হওয়ায় ইতিমধ্যে দেওয়ান ডেইরি ফার্ম এন্ড এগ্রোতে প্রতিদিনই বিভিন্ন স্থান থেকে উৎসুক ক্রেতারা তাকে দেখার জন্য ভিড় করছেন।

প্রায় ৬ ফিট উচ্চতা এবং ১০ ফিট লম্বা বিশালাকৃতির সাধুর্ ওজন প্রায় দেড় টন।

গরুটির মালিক মো. কামাল দেওয়ান বিক্রির জন্য এর দাম হেঁকেছেন ১৫ লাখ টাকা। তবে আলোচনা সাপেক্ষে দাম কিছুটা কমানো যাবে।

গরুটির মালিক আশুলিয়ার জিরাবো কলেজরোড এলাকার দেওয়ান ডেইরি ফার্ম এন্ড এগ্রোর মালিক মো. কামাল দেওয়ান বলেন, নিজের ফার্মের গরুর তিনটি বাচ্চাকে কোরবানির ঈদে বিক্রির জন্য দীর্ঘদিন ধরে লালনপালন করে আসছি। এর মধ্যে চার বছর বয়সী সাধুকে সবচেয়ে বেশি আদরে লালন পালন করা হয়েছে।

সাধুর খাবারের তালিকায় রয়েছে খড়, কাঁচা ঘাস, খৈল, ভুসিসহ বিভিন্ন প্রকার খাবার।

এছাড়াও সোলা, ছাল, বেশন, গমের ভূসি, মাসকলাইসহ নিজের চাষ করা ক্ষেতের ঘাস খাইয়ে তাকে বড় করা হয়েছে। ওজন ঠিক রাখার জন্য ক্যালসিয়াম খাওয়ানো হয়।

ইতিমধ্যে অনেকেই গরুটিকে দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন অনেকেই।

আশুলিয়ার জিরাবো বাসস্ট্যান্ডে নেমে পূর্বদিকের কলেজ রোডের ২০০ গজ ভেতরেই দেওয়ান ডেইরি ফার্ম এন্ড এগ্রোর অবস্থান। দিনের যে কানো সময় ক্রেতারা চাইলে সাধুকে দেখতে পারবেন।

যে কেউ গরুটি দেখে পছন্দ হলে দরদাম করে কিনে নিতে পারবেন।

সাধুর চিকিৎসার জন্য নিয়মিত সাভার কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারের একজন চিকিৎসক গরুটির দেখাশুনা করেন।

দূর থেকে দেখলে মনে হবে এটি বিশালকৃতির মহিষ। খাবারের জন্য প্রতিদিন সাধুর পেছনে প্রায় হাজারখানেক টাকা ব্যয় হয়।

খাবারের তালিকায় আছে প্রতিদিন প্রায় পাঁচ কেজি ভেজানো ছোলা, গমের ভুসি, মিষ্টি কুমড়া এবং সবুজ কাঁচা ঘাসসহ বিভিন্ন খাবার। ভালো দাম পেয়ে পেলে বাড়ি থেকেই গরুটিকে বিক্রি করার কথা জানান কামাল দেওয়ান। আর যদি ভালো দাম না উঠে তাহলে বাজারে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করবেন।


অর্থনীতি,ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_