মঙ্গলবার-২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-সকাল ১০:১৮

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ টেকসই ভবিষ্যতের জন্য বিশ্ব নেতাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ছয় দফা সুপারিশ রাজারহাটে জলবায়ু ঝুকিপূর্ণ ফোকাস গ্রুপের সাথে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুজানগরে বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ ও ৬ষ্ঠ বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত আবারও বিয়ে করেছেন ইভা রহমান শ্রীমঙ্গলে ইয়াবাসহ মাদক কারবারি আটক ৭ আপ ৮ ডাউন এক জোড়া মেইল ট্রেন এখনো বন্ধ সান্তাহার-পঞ্চগড় রুটের ।। লালপুরে ইমো প্রতারক চক্রের আরো ৬ সদস্য আটক

পর্যটকদের নৌ-ভ্রমণে মুখরিত সুজানগরের গাজনার বিল

প্রকাশ: শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১ , ৪:২৭ অপরাহ্ণ , বিভাগ :

সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি ঃ মহামারী করোনার মধ্যেও পর্যটকদের নৌ-ভ্রমণে মুখরিত হয়ে উঠছে পাবনার সুজানগরের ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিল। বিশেষ করে প্রতি শুক্রবার বিকালে শত শত ভ্রমণ পিপাসু নারী-পুরুষ পর্যটকরা গাজনার বিলে এসে নৌ-ভ্রমণ করছেন।
গাজনাপাড়ের উলাট গ্রামের নুরুল ইসলাম জানায়, প্রতি বছর বর্ষার মৌসুম এলেই নতুন পানিতে গাজনার বিল থৈ থৈ করে। আর বিলে এ পানি থাকে পৌষ মাস পর্যন্ত। বর্ষার শুরু থেকে পৌষ মাস পর্যন্ত দীর্ঘ এ সময় প্রায় অর্ধশত সবুজ শ্যামল গ্রাম বেষ্টিত বিশাল বিস্তৃত গাজনার বিল সত্যই অপরূপ সৌন্দর্যে রূপ নেয়। সেকারণে এ সময় দূরদূরান্ত থেকে হাজার হাজার নারী-পুরুষ পর্যটক ছুটে আসেন গাজনার বিল ভ্রমণে। ভ্রমণ পিপাসু এসব বেশিরভাগ পর্যটক গাজনার বিলে নৌ-ভ্রমণ করে থাকেন। পর্যটকদের নৌ-ভ্রমণের জন্য বিলের খয়রান ব্রিজ পয়েন্টে, চরবোয়ালিয়া পয়েন্টে এবং বোনকোলা ব্রিজ পয়েন্টে বাণিজ্যিকভাবে রাখা হয়েছে ইঞ্জিন চালিত বড় নৌকা, ডেঙি নৌকা ও স্পীডবোড। তাছাড়া পর্যটকদের দৃষ্টি আকৃষ্ট করতে স্থানীয়ভাবে বিলের খয়রান ব্রিজ পয়েন্টে রাখা হয় বিশাল বাইচ’র নৌকা। পর্যটকরা এসব বাইচ’র নৌকায়ও বিল ভ্রমণ করে থাকেন। তবে বাইচ’র নৌকায় সাধারণত স্থানীয় পর্যটকরা বেশি ভ্রমণ করেন। বিলপাড়ের খয়রান গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুর রহমান জানায়, প্রতিদিন কমবেশি পর্যটককে গাজনার বিলে নৌ-ভ্রমণ করতে দেখা যায়। তবে প্রতি শুক্রবার বিকালে পর্যটকদের নৌ-ভ্রমণে গাজনার বিল মুখরিত হয়ে উঠে। এদিন শত শত পর্যটক তাদের পরিবারপরিজন নিয়ে গাজনার বিলে নৌ-ভ্রমণ করেন। পর্যটকরা বিকাল থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত বিলের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত পর্যন্ত ঘুরে নৌ-ভ্রমণ করেন। এদের মধ্যে অনেক পর্যটক আবার বিলপাড়ে বনভোজনও করে থাকেন। বিলে নৌ-ভ্রমণে আসা পর্যটকরা জানান, বিলটি ঘিরে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা সম্ভব। তবে এ জন্য প্রয়োজন সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় বিলে সারা বছর পানি ধরে রাখার ব্যবস্থা করাসহ বিলের চারদিকে পরিকল্পিত পিকনিক স্পট এবং আবাসন সুবিধা গড়ে তোলা। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওশন আলী বলেন পর্যটকদের সুবিধার্থে ইতিপূর্বে বিলপাড়ে বেঞ্চ তৈরী করার পাশাপাশি সৌর বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও পর্যটন সুবিধা বাড়ানোর ব্যবস্থা করা হবে। #


ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_