বৃহস্পতিবার-১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-১লা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-রাত ১০:০৪

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ সুপারিশপ্রাপ্তদের ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভেরিফিকেশন ফরম পূরণের নির্দেশ টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্ব ছাড়ছেন কোহলি গণমাধ্যমে শৃঙ্খলা আনার দাবি সাংবাদিকদেরই : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী নির্বাচনী এলাকায় ২০ সেপ্টেম্বর ব্যাংক বন্ধ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে : ডিএমপি কমিশনার আজও ৫১ জনের মৃত্যু বিএনপি অরাজকতা করলে কঠোর হাতে দমন: কৃষিমন্ত্রী

দেড় বছর পর খুললো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে খানসামা উপজেলায় ক্লাসে ফিরলো শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ: রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ , ১২:২৫ অপরাহ্ণ , বিভাগ :
এস.এম.রকি, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের বৃদ্ধির আশংকায় দেড় বন্ধ থাকার পর সারাদেশের ন্যায় দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও সরকারী নির্দেশনা মতে খুললো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এতে শিক্ষার্থীদের চোখে-মুখে আনন্দের ছাপ এবং স্বস্তিতে অভিভাবক ও সুশীল সমাজ।
রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই বিভিন্ন প্রান্ত থেকে স্কুল ড্রেস পরিহিত অবস্থায় ও মাস্ক পড়ে প্রতিষ্ঠান আসছে শিক্ষার্থীরা। প্রতিটি স্কুলের প্রবেশ মুখেই শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানানোর পর তাপমাত্রা পরিমাপ, মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা,  হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়।
কয়েকটি স্কুলের ক্লাস রুমে দেখা যায়, প্রতিটি ক্লাস রুমে সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রতি বেঞ্চে  শিক্ষার্থী বসানো হয়েছে। খুশির সংবাদ হল দীর্ঘদিন পর ক্লাসরুমে ফিরতে পেরে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে বাড়তি উত্তেজনা। সবার মুখে লেগে আছে মিষ্টি হাসি।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, খানসামা উপজেলায় ১৪৩ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১ টি শিশু কল্যাণ কেন্দ্র মিলে প্রায় ২১ হাজার শিক্ষার্থী এবং নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, মাদ্রাসা, স্কুল এন্ড কলেজ ও উচ্চতর পর্যায়ের ৮৪ টি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থীদের আগমনে মুখরিত শিক্ষাঙ্গন।
আনন্দের সুরে পাকেরহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্র মুশফিকুর রহমান বলেন বলেন, দীর্ঘদিন পরে স্কুল আসলাম। এটি অনেক আনন্দের। ভালো সময় কাটছে।
শ্যামল রায় নামে এক অভিভাবক বলেন, বাসায় বাচ্চারা পড়াশুনোয় অমনোযোগী হয়ে গেছিলো। সেটা থেকে স্কুল খোলা স্বস্তির।
জমিরউদ্দীন শাহ বালিকা বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) শাহরিয়ার জামান শাহ নিপুণ বলেন, সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও প্রাথমিক পর্যায় এর স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রস্তুত রেখে ক্লাস শুরু করা হয়েছে। আশা রাখি সমস্যা হবে না।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম এ মান্নান বলেন, সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খোলার পূর্বেই তদারকির মাধ্যমে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। স্কুল খোলার দিনে সকল নিয়ম মেনেই ক্লাস শুরু করা হয়েছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আজমুল হক বলেন, স্বাস্থ্য বিধি ও ক্লাস রুমে দূরত্ব নিশ্চিত করতে আমরা কাজ করছি। সকলের সচেতনতাই প্রথম দিন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই পার হয়েছে।
ইউএনও আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখতে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টরা প্রতিদিন তাদের পর্যবেক্ষণ করবেন। আগত শিক্ষার্থীদের সামাজিক দূরত্ব মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সারিবদ্ধভাবে প্রবেশ করার নির্দেশনা রয়েছে। সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসন সজাগ আছে।

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_