রবিবার-৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ-২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-সকাল ৮:৫৪

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ বঙ্গবন্ধুর শাসনব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা করা উচিত : মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আগামীকাল থেকে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি কার্যক্রম শুরু রাজনগরে অপহৃত এক শিশুকে সিলেট থেকে উদ্ধার ক্যাটরিনার বিয়েতে দাওয়াত পাননি সালমান-রণবীর! নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ দল ঘোষণা গুরুতর আহত প্রিয়াঙ্কা শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষে শিবগঞ্জের অভিরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিভাবক ও সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত

নগদ টাকা ও চাউল বিতরন লালমনিরহাটে অসময়ে বন্যা পানি বন্দী হাজার হাজার পরিবার বিপদ সীমার ৪৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে 

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১ , ১১:২০ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :
মোঃ  লাভলু শেখ  লালমনিরহাট থেকে।
গত ২ দিনের টানাভারী বষর্ণে ও পাহাড়ী ঢলে লালমনিরহাট জেলার ৫ উপজেলায় অসময়ে বন্যা দেখা দিয়েছে। এতে পানি বন্দী হয়ে পড়েছে হাজার হাজার পরিবার আর ওই পানি বন্দী পরিবার গুলো আশ্রয় নিয়েছে তিস্তার বাঁধে। তবে টানা বৃষ্টিতে অতিষ্ঠ জনজীবন। পানি বন্দী পরিবার গুলো গত ২ দিন ধরে চরম দুভোগে পড়েছে।   হঠাৎ করে পানি বন্দী হওয়া হাজার হাজার পরিবার তাদের পোষা গরু,  ছাগল, হাঁস মুরগি নিয়ে বিপাকে পড়েছে। গো খাদ্যর সংকট দেখা দিয়েছে। অপরদিকে চলতি মৌসুমের বিভিন্ন ফসলসহ আমন ধান ক্ষেত পানিতে ডুবে গেলেও বৃহস্পতিবার ভোর রাত থেকে পানি নেমে যাওয়ায় কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে পানি বন্দী পরিবার গুলোর মাঝে। লালমনিরহাট জেলা এান অফিস জানান, পানি বন্দী পরিবার গুলোর মাঝে এপযর্ন্ত নগদ ৮ লক্ষ টাকা ও ১ শ ৭০ টন চাউল বিতরন করা হয়েছে। গত ২ দিনে এসব বিতরন করা হয়। জানা গেছে, ফ্লাড বাইবাস এবং টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে  লালমনিরহাটের সদর উপজেলার কুলাঘাট,  মোগলহাট, গোকুন্ডা,  রাজপুর,  খুনিয়াগাছ, আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়ন , কালীগন্জ উপজেলার ভোটমারী ইউনিয়নের শৈলমারী এলাকায়,  হাতীবান্ধা উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে এবং পাটগ্রাম উপজেলার তিনবিঘা ও দহগ্রামসহ জেলায় হাজার হাজার পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়ে । বুধবার রাত ১২ টা থেকে তিস্তা ব্যারেজের ৪৪ টি জল কপাট খুলে দেয়া হয়েছিল এবং বিপদ সীমার ৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হলেও  বতমানে তা কমে ৪৫ সেন্টিমিটার বিপদ সীমার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে  বলে বৃহস্পতিবার  পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী র ডালিয়া অফিস (তিস্তা ব্যারেজ) এর পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়। অপরদিকে তিস্তার ভয়াবহ রুপ দেখায় তিস্তার তীরবর্তী এলাকার পানি বন্দী পরিবার গুলোকে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সরানোর হয়েছিল  বৃহস্পতিবার ভোর বেলা থেকে পানি কমে গেলে কিছু কিছু পরিবার তাদের বাড়ীতে ফিরেছে  । বৃহস্পতিবার সরেজমিনে হাতীবান্ধা উপজেলার গেলে পানি কমে যাওয়ার দৃশ্য দেখা গেছে। বুধবার পানির ভয়াবহতা দেখে  কতৃপক্ষ রের্ডএলাড জারি করেছিল।

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_