- Muktinews24 - https://muktinews24.com -

শীত মৌসুমি সবজির দখলে বরিশালের পাইকারি কাঁচাবাজার

মনির হোসেন,বরিশাল ব্যুরো ॥ বরিশালের পাইকারি কাঁচাবাজারে শীত আসার আগেই আসতে শুরু করেছে শীতের আগাম সবজি। তবে গত সপ্তাহে পাইকারি বাজারে সবজির আমদানি ছিল কিছুটা কম। এর ফলে চাহিদা বেশি থাকায় দামও কিছুটা বৃদ্ধি । শীতের সবজি বলতে এখন আর বিশেষ কোনো সবজি বোঝায় না, কেননা শীতের বেশ কিছু সবজি বর্তমানে বছরের অন্যান্য সময়েও পাওয়া যায়। কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, কৃষির উন্নতির কারণে সারা বছরই সব সবজি মিলছে। এখনকার বেশির ভাগ সবজির আবাদ আগে হয়েছে। এগুলোর বেশির ভাগই অপরিপুষ্ট। টমেটো, শশা, শিম, গাজর, কুমড়া, কাচা মরিচ, কহি, বাধাকপি, পেপে, কাচা কলা, বেগুন সারা বছরের সবজি হিসেবেই পাওয়া যাচ্ছে। এর বাইরে শীতের সবজি হিসেবে শিম, মৌউসি শিম, লাউ, ফুলকপি, মুলা, জলপাই, পেয়াজ পাতা, পুই শাক, দাঁড়া শাক, লাউ শাক, পালং শাক, লাল শাক বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। তবে শীতের শুরুর দিকে দাম ক্রেতাদের নাগালের বাইরে থাকে। বরিশাল বহুমুখী সিটি পাইকারি কাঁচাবাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী গোলাম নবী জানান, সবজির আমদানি বর্তমানে একটু কম আছে,এর ফলে চড়া মূল্যে কিনে তা খুচরা বিক্রি করতে হচ্ছে।তবে দাম একটু বেশি থাকলেও সেটা সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমার মধ্যে রয়েছে। আর এসব সবজি যশোর,মেহেরপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসে। বরিশাল বহুমুখী সিটি পাইকারি কাঁচাবাজারের আরেক পাইকারি ব্যবসায়ী রুবেল শেখ জানান, বর্তমানে পাইকারি দরে কেজি প্রতি ফুলকপি .৪০ থেকে ৫০ টাকা, শালগম ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, বটবটি ৬০ থেকে ৭০ টাকা, শিম ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা, মুলা ২৫ থেকে ৩০ টাকা, বাঁধাকপি ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, লাউ প্রতিটি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, ধনিয়া পাতা ৮০ থেকে ১০০ টাকা, লাল শাকের আঁটি ১৫ থেকে২০ টাকা, টমেটো (কোলেস্টরেল) ১৮০ থেকে ২০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।এছাড়াও বাজারে অন্য সবজি কেজি প্রতি পেঁপে ৮ থেকে ১০ টাকা, বেগুন ৫০থেকে ৬০ টাকা, করলা ৭০থেকে ৭৫ টাকা, কাঁচা মরিচ ৯০ থেকে ১০০, কাঁচা কলা ১০ থেকে ১২ টাকা হালি দরে বিক্রি হচ্ছে।শীতের নতুন আলু বাজারে আসেনি এখনো। মাস খানিকের মধ্যেই নতুন আলুও বাজারে পাওয়া যাবে বলে জানান এই বিক্রেতা। তবে এত সবজির সমারোহ দেখে চোখ জুড়ালে কি হবে, ঝলক দিয়ে ওঠা এই দৃষ্টি মুহূর্তেই নিভে যায় দাম শুনে।পাইকারি বাজারের তুলনায় প্রায় দেড়গুণ দামে সবজি বিক্রয় করছে খুচরা ব্যবসায়ীরা। এমন অভিযোগ করছে সাধারণ ক্রেতারা।নথুল্লাবাদ কাঁচাবাজারে ফিরোজ নামের এক ক্রেতা জানান,বাজারে নতুন কয়েক ধরনের সবজি এসেছে।সরবরাহ আগের চেয়ে বেশি থাকলেও সেভাবে দাম কমেনি।