বৃহস্পতিবার-২০শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ-৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,-সকাল ১০:১৪

Reg No-36 (তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত)

শিরোনামঃ করোনাভাইরাস: বাংলাদেশ কি হার্ড ইমিউনিটির দিকে যাচ্ছে? বাংলাদেশের বোলিং কোচ হতে আগ্রহী টেইট মৌলভীবাজারে আশার শাখা ব্যবস্থাপকদের ষান্মাসিক সমন্বয় সভা মৌলভীবাজারে নতুন করে আরো ৪৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত সুজানগরে ১৪টন পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক খাদে, চালক-হেলপার অক্ষত তজুমদ্দিনে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন কর্তৃপক্ষের অভিযানে চার ব্যবসায়ীকে জরিমানা তজুমদ্দিনের মেঘনায় অভিযান ২২ হাজার মিটার অবৈধ জাল উদ্ধার

সুজানগরে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের ধুম

প্রকাশ: শুক্রবার, ১২ নভেম্বর, ২০২১ , ৬:৫৭ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ :

 

SAMSUNG CAMERA PICTURES

তৌফিক হাসান, সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি ঃ দেশের ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিল বেষ্টিত পাবনার সুজানগরে চলতি শীতের মৌসুমে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের ধুম পড়েছে। কম খরছে লাভ বেশি হওয়ায় প্রকৃত মৎস্যজীবীদের পাশাপাশি সাধারণ মৎস্যজীবীরাও শুঁটকি মাছ উৎপাদন করছেন।
উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, সুজানগর পৌরসভাসহ উপজেলার দুলাই, রানীনগর, হাটখালী এবং মানিকহাট ইউনিয়ন এলাকায় প্রায় ১‘শ শুঁটকি চাতালে রয়েছে। এ বছর ওই সকল চাতালে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের ল্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ২৫হাজার মণ। ইতিমধ্যে উপজেলার মৎস্যজীবীরা তাদের বাড়ির আশপাশে আবার কেউবা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিলেরপাড়ে বড় বড় বাঁশের চাতাল তৈরী করে শুঁটকি মাছ উৎপাদন করছেন। মৎস্যজীবীরা গাজনার বিলসহ আশপাশের ৪/৫টি বিল থেকে পুঁটি, টেংরা, বান, শোল, টাকি, এবং চাঁদা মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির দেশি মাছ কিনে ওই সকল চাতালে শুকাচ্ছেন। উপজেলার মসজিদপাড়া গ্রামের মৎস্যজীবী আব্দুল করিম বলেন আমরা কোন প্রকার রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যকর উপায়ে শুঁটকি মাছ উৎপাদন করি। সেকারণে দেশ এবং দেশের বাইরে সুজানগরের শুঁটকি মাছের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তবে দেশের অন্যান্য স্থানের চেয়ে সৈয়দপুরের শুঁটকির আড়তে সুজানগরের শুঁটকি মাছের চাহিদা বেশি। সেকারণে প্রত্যেক বছর ১০/১২ হাজার মণ শুঁটকি মাছ সৈয়দপুরের শুঁটকির আড়তেই বিক্রি করা হয় বলে জানান, একই এলাকার মৎস্যজীবী দুলাল হোসেন। উপজেলার মসজিদপাড়া গ্রামের শুঁটকি ব্যবসায়ীরা শিপলু বিশ্বাস জানান, ইতিমধ্যে সৈয়দপুরসহ দেশের অন্যান্য আড়তে প্রায় ৩‘শ মণ শুঁটকি মাছ বিক্রি করা হয়েছে। তবে বর্তমানে শুঁটকির বাজার মন্দা। বর্তমান বাজারে এক মণ পুঁটি মাছ শুকাতে খরচ হয় সাড়ে ৪হাজার টাকা। অথচ বর্তমান বাজারে ১মণ পুঁটি মাছ শুঁটকি বিক্রি হচ্ছে ৫থেকে সাড়ে ৫হাজার টাকায় যা, প্রায় উৎপাদন খরচের সমান। ভুক্তভোগী মৎস্যজীবীরা শুঁটকি মাছ উৎপাদনে সরকারি সহায়তা কামনা করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা নূর কাজমীর জামান খান বলেন ভবিষ্যতে উপজেলার শুঁটকি উৎপাদনকারী মৎস্যজীবী ও ব্যবসায়ীরা যাতে সরকারি সহায়তা পান সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপরে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে।


ঢাকা,রাজশাহী,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ


_