তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:১২ অপরাহ্ন

আমার মনে হয়েছে কনফার্ম আউট, রিভিউ ইস্যুতে লিটন

  • প্রকাশ মঙ্গলবার, ৪ জানুয়ারী, ২০২২, ১১.৩৪ এএম
  • ৫৮ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: নতুন বছরে যেন নতুন রূপ দেখাচ্ছে টাইগাররা। ব্যাটিং-বোলিং উভয় ডিপার্টমেন্টেই চাপে রেখেছে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডকে। মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের প্রথম ৩ দিন দাপট দেখানো টাইগাররা মঙ্গলবার চতুর্থ দিনে খানিকটা পথ হারিয়ে বসেছিল। তবে চর্তুথ দিনটা দারুণভাবে শেষ করেছে বাংলাদেশ। ফলে চর্তুথ দিন শেষে ৫ উইকেটের বিনিময়ে নিউজিল্যান্ড সংগ্রহ করেছে ১৪৭ রান। বাংলাদেশের চেয়ে মাত্র ১৭ রানে এগিয়ে আছে কিউইরা। তাই পঞ্চম দিনের সকালে বোলাররা যদি বাকি ৫ উইকেট তুলে নিতে পারে তাহলে ভালো কিছু করতে পারবে বাংলাদেশ।

তবে এই ম্যাচে বাংলাদেশের রিভিউ নেওয়ার ভুল সিদ্বান্ত নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ রিভিউ নিয়েছে ৪ বার তারমধ্যে ৩ বারই ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ। ফলে খেলার ৩৭ ওভারের মধ্যেই ৩টি রিভিউ হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। এর মধ্যে বাংলাদেশের হারানো তৃতীয় রিভিউটি বেশি হতাশাজনক ছিল। তাসকিন আহমেদের বল সরাসরি রস টেলরের মাঝ ব্যাটে লাগে। বাংলাদেশ এলবিডব্লিউয়ের আবেদন করে।

আম্পায়ার নাকচ করে দেওয়ার পর বোলার অধিনায়ককে অভয় দেন বল পায়ে লেগেছে বলে। মুমিনুল আবারও রিভিউ নেন। রিভিউতে দেখা যায়, পায়ের কোথাও সেই বলই লাগেইনি। প্যাডের যথেষ্ট দূর দিয়েই গেছে বল। পরিষ্কার দেখা যায়, ব্যাট দিয়েই বল রুখে দিয়েছেন টেলর। বল ও প্যাডের এতটাই দূরে ছিল যে খালি চোখেই রিভিউ বাতিল হয়ে যায়। যেটা ছিল বাংলাদেশের শেষ রিভিউ। ধারাভাষ্যকক্ষের পাশাপাশি জায়ান্ট স্ক্রিনে তা দেখে হাসির রোল ওঠে গ্যালারিতেও।

এদিকে চর্তুথ দিনের খেলা শেষে রিভিউ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে লিটন কুমার দাস বলেন, আসলে ওভার এক্সাইটেড না, প্রথমটার কথাই বলি, আমি যখন রিভিউ নিলাম, আমি পেছনে ছিলাম, আমার মনে হয়েছে কনফার্ম আউট। কিন্তু নেয়ার পর সেটি লস হল। দ্বিতীয়টা আমরা নেয়ার পর সফল হয়েছিলাম। কনওয়ের উইকেট। ওটাতে কিন্তু সাদমান, মিরাজ, শান্ত, রাব্বি, যতগুলা প্লেয়ার সামনে ছিল, তাদের কল ছিল। আমি পেছনে থাকায় বুঝতে পারিনি ইনার এজ হয়েছিল।

লিটন আরোও বলেন, এটা হয় অনেক সময়, আপনি রিভিউতে সফল হবেন, কখনো হবেন না। পরেরটায় মিরাজ কনফিডেন্ট ছিল বিষয়টা নিয়ে। আমরা তাকে ব্যাক করেছি। কারণ প্রতিটা খেলোয়াড়ের দায়িত্ব ফিডব্যাক নেয়া। আমরা সেগুলো নেই। অনেক কিছু আমি পেছন থেকে বুঝতে পারিনা। লাস্ট কল যেটা ছিল, তাসকিনের ও অনেকটা নিশ্চিত ছিল যে প্যাডে লেগেছে। আমি পেছন থেকে বুঝতে পারছিলাম না। আমারা তো চাচ্ছিলাম একটা উইকেট পড়ুক। এই জন্যই আমরা চান্স নিয়েছি।

সূত্রঃ বাংলাদেশ জার্নাল

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam