তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৩:২৬ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আর্থিক শৃঙ্খলার জন্য অডিট রিপোর্ট সঠিক হওয়া প্রয়োজন                                                                           — বাণিজ্যমন্ত্রী ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি ৪০ দিনেই ৪০ কোটি টাকার বেশি খাজনা আদায় লালমনিরহাটে সাংবাদিকদের উপরে হামলার ঘটনায় প্রাধান আসামি গ্রেপ্তার  আটোয়ারীতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কলেজ ছাত্রের মৃত্যূ পিরোজপুরে র‌্যাবের অভিযানে এক যুবকে গ্রেপ্তার মৌলভীবাজারে ডিমের দোকানে ভোক্তার অভিযান, ৩টিতে জরিমানা দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার খানসামা উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আগামী মাসে সমন্বয় করা হবে তেলের দাম, থাকবে না লোডশেডিং

চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন কৃষকরা

  • প্রকাশ শনিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২২, ১১.৫৮ এএম
  • ৬০ বার ভিউ হয়েছে

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: অধিক ফলনশীল ও আকর্ষণীয় হাইব্রিড লাউ সুলতানা চাষে চমক সৃর্ষ্টি করেছেন শ্রীমঙ্গল উপজেলার বনগাঁও গ্রামের কৃষক ইমাম হোসেন। লালতীরের অধিক ফলনশীল ও আকর্ষণীয় হাইব্রিড লাউ সুলতানা চাষের সফলতায় অনান্য কৃষকদের মাঝেও সারা জাগিয়েছেন তিনি। তাঁর এমন সফলতা দেখে এ গ্রামের বেকার যুবক সহ অনেকেই এখন ঝুঁকছেন সুলতানা চাষের দিকে। অল্প খরছে অধিক লাভবান হওয়ায় লাউ সুলতানা চাষ করতে আগ্রহী এলাকার অনেক কৃষক। এই উচ্চ ফলন শীল বীজ সকল কৃষদের মাঝে বিস্তার ঘটাতে উদ্যোগ নিয়েছে বীজ এর উৎস প্রতিষ্ঠান লাল তীর সীড। শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের কৃষক ইমাম হোসেন। তার ৩৩ শতাংশ জমিতে প্রথম বারের মত পরীক্ষা মূলক শুরু করেন লালতীর এর হাইব্রিড জাতের লাউ সুলতানা চাষ। তার মাঠে এখন সারি সারি গাছে ঝুলছে অগণিত লাউ সুলতানা আর সুলতানা। চারা লাগানোর ৫৫ দিনের মাথায় গাছে ফল আসা শুরু করে। ওজনে লাউ গুলো হয়ে থাকে ৩ থেকে ৪ কেজি। টানা ৩ মাস ফল দেয় সুলতানা। ৩৩ শতাংশ জমিতে লাউ চাষ করতে খরচ হয়েছে ৩ হাজার টাকার মতো। আর এখন মাঠ থেকে প্রতি পিছ লাউ বিক্রি করেছেন ৬০ থেকে ৬৫ টাকা মূল্যে। প্রথম অবস্তায় ২৫ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করেছেন কৃষক ইমাম হোসেন। বিঘা প্রতি হাইব্রিড লাউ সুলতানার উৎপাদন হয় ৪৫ থেকে ৫০ টন। সফল কৃষক ইমাম হোসেন জানান, এ সময়ে বাজারে লাউয়ের চাহিদা বেশি থাকে। তাই স্থানীয় বাজারে লাউয়ের চাহিদাও ভালো। স্থানীয়রা বাগানে এসেও লাউ ক্রয় করে নিচ্ছেন। এমন উৎপাদন অব্যাহত থাকলে তিনি প্রায় লক্ষাধিক টাকার উপরে হাইব্রিড লাউ সুলতানা বিক্রি করতে পারবেন বলে আশাবাদী। এখানকার স্থানীয় কৃষক রহিম মিয়া সহ অনেকেই জানালেন, ইমাম হোসেন হাইব্রিড লাউ চাষ শুরু করার অল্প সময়ে চাষে সফল হয়েছেন। তাঁর চাষ দেখে আমাদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ তৈরি হয়েছে। তার এ সফলতা দেখে গ্রামের অনেকেই সুলতানা চাষ করার পরিকল্পনা করছে। হাইব্রিড লাউ সুলতানা বীজ এর উৎস প্রতিষ্ঠান লাল তীর সীড লিমিটেড এর বিভাগীয় ব্যবস্থাপক তাপস চক্রবর্তী জানান,সুলতানা অধিক ফলনশীল আকর্ষণীয় ও এদেশের আবহাওয়া ও জলবায়ুতে সহনশীল। লাউটি হালকা সবুজ এবং লম্বায় ৫০ সেন্টিমিটার। আমাদের নিজস্ব উৎপাদিত একটি লাউয়ের জাত এটি। কৃষকদের জন্য অনেকটাই আর্থিকভাবে লাভজনক এবং সারা বছর চাষ করা যায়। শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন বিভাগের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা কংকন মল্লিক জানান, হাইব্রিড সুলতানা চাষ করে কৃষক অল্প সময়ে লাভবান হবেন। যার বাস্তব প্রমান বনগাঁও গ্রামের কৃষক ইমাম হোসেন। উনাকে দেখে এখন অনেক কৃষক লাউ চাষে আগ্রহী হয়ে ওঠেছেন। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে চাষীদের বিভিন্ন প্রশিক্ষন দেওয়া হচ্ছে। ইমাম হোসেন মত অন্যান্য কৃষকরাও যেন তাদের অনেক অনাবাদি, খালি পড়ে থাকা জমিতে লাউ চাষ বৃদ্ধি করেন। এ অঞ্চলে সবজি চাষ বৃদ্ধি এবং নতুন নতুন জাতের সবজির প্রসার ঘটাতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি বলে জানান বিভাগীয় ব্যবস্থাপক তাপস চক্রবর্তী।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam