তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে সাকিবের অবিশ্বাস্য রেকর্ড আদমদীঘিতে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা তৃতীয় দিনে ৯২ হাজারের বেশি টিকিট বিক্রি শেখ হাসিনার বারতা নারী পুরুষ সমতা  উলিপুরে চেক বিতরণ অনুষ্ঠান  মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভা ও ক্রাইম কনফারেন্স অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে জিএম কাদেরের ঈদ শুভেচ্ছা ফুলবাড়ীতে নেসকো কোম্পানীর বিদ্যুৎ নিয়ে ভেলকিবাজি এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আগস্টে নোয়াখালীতে উদ্বোধনের ২৪ ঘন্টা না যেতেই বিআরটিসি বাসঃ পুনরায় চালুর দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের লালমনিরহাট ক্যাম্পাসের একাডেমিক সেশন উদ্বোধন করেন বিমান বাহিনী প্রধান

মজুরি বৈষম্যের শিকার নারী শ্রমিকেরা

  • প্রকাশ রবিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২২, ৯.৪১ এএম
  • ২৯ বার ভিউ হয়েছে

জিল্লুর রয়েল, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : মানবতার কবি কাজী নজরুল ইসলাম তাঁর নারী কবিতায় যথার্থ লিখেছেন শষ্যক্ষেত্র উর্বর হল, পুরুষ চালাল হাল, নারী সেই মাঠে শষ্য রোপিয়া করিল সুশ্যামল। এমনি দৃশ্য চোখে পরে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের পাশে নন্দীগ্রাম উপজেলার কৈডালা মাঠে। ওই মাঠে পুরুষেরা ধানের চারা রোপনের জন্য পাওয়ারটিলার দিয়ে জমি চাষ করে দিচ্ছে। আর নারী শ্রমিকরা ধানের চারাগুলো জমিতে রোপন করচ্ছে। কবি নজরুলের সাম্যের গান কর্মক্ষেত্রে মিলে গেলেও মজুরির ক্ষেত্রে মিলছেনা। আমাদের সমাজে নারীরা দীর্ঘকাল যাবৎ নানা রকমের অত্যাচার, অবিচার ও বৈষম্যের শিকার। মধ্যযুগ থেকে তার সূত্রপাত হলেও আজও তা শেষ হয়নি। মাঠে কাজ করা এ নারী শ্রমিকেরা সকাল-সন্ধ্যা পুরুষ শ্রমিকদের মতো কাজ করে। কিন্তু তাদের মজুরি পুরুষ শ্রমিকদের তুলনায় অনেক কম। বছর ঘুরে নারী দিবস আসে। তখন নারী শ্রমিকদের মজুরি বৈষম্যের শিকার হওয়ার বিষয়টি জোরেশোরে উচ্চারিত হয়। কিন্তু তাদের মজুরির কোনো পরিবর্তন হয় না। জানতে চাইলে কৃষিশ্রমিক কান্তি বালা উরাও বলেন, আমরা ধান লাগানো, জমি নিড়ানি, ধান কাটা, মাটি কাটাসহ সবধরনের কাজ করি। কিন্তু পুরুষ মানুষের চেয়ে আমরা মজুরি আনেক কম পাই। একজন পুরুষ মানুষের ৫০০টাকা মজুরি হলে সেখানে মেয়েরা পায় ২৫০-৩০০টাকা। খন্দকার হোটেলের নারী শ্রমিক শাফিয়া বেগম বলেন, হোটেলের এক জন পুরুষ শ্রমিক একদিন কাজ করলে ৬০০ টাকা বেতন পায়। আমি সকাল থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত থালাবাসন ধুয়ে পাই ২০০ টাকা। এ বিষয় জানতে চাইলে একজন সফল নারী ও নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিফা নুসরাত বলেন, নারী শ্রমিকরা মজুরির বৈষম্যের শিকার হয়। এটি দুঃখজনক হলেও সত্য, একজন নারী শ্রমিক পুরুষ শ্রমিকের সমান কাজ করেও মজুরি অনেক কম পায়। মজুরি বৈষম্য দূর করতে হলে সমাজের প্রতিটি স্তরের মানুষকে সচেতন হতে হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam