তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০২:৩৪ অপরাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
ঘোড়াঘাটে বিদ্যুৎ এর মিটার চুরি তার পর চিরকুটে ফোন নাম্বার লেখে টাকা দাবি,আটক ১ কুলাউড়ায় পুলিশের অভিযানে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার তিন দিনের জন্য চালু হলো ‘ক্যাটল স্পেশাল ট্রেন’ সৈয়দপুরে ইউএনডিপি’র অর্থায়নে রাস্তা সংষ্কার কাজ উদ্বোধন করলেন পৌর মেয়র রাফিকা সাউথ বাংলা ব্যাংকে চাকরির সুযোগ সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়া কোরবানির পশুবাহী গাড়ি থামানো যাবে না নন্দীগ্রাম উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা উপলক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ‘সেলুন পাঠাগার বিশ্বজুড়ে’ উদ্বোধন হল ওয়ারলেসে নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ১২২ মাধ্যমিক স্কুলের তালিকা চিলমারীতে বন্যায় ১৪ কোটি টাকার ক্ষতি

শপথ নিলেন পাকিস্তান সুপ্রিমকোর্টের প্রথম নারী বিচারপতি

  • প্রকাশ মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২, ৭.৫৭ এএম
  • ৩২ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টের প্রথম নারী বিচারপতি আয়েশা মালিক দেশটির রাজধানী ইসলামাবাদে শপথ নিয়েছেন।

 

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, মুসলিম অধ্যুষিত দেশটির তিনিই প্রথম নারী বিচারপতি এবং ১৬ জন পুরুষ সহকর্মীর সাথে গঠিত একটি বেঞ্চে বসেন তিনি।

 

আইনজীবী ও অন্য অ্যাক্টিভিস্টরা বলছেন, পাকিস্তানের পুরুষ শাসিত সমাজে নারীদের প্রতিনিধিত্বের লড়াইয়ের কয়েক দশকের মধ্যে এটি বিরল জয়।

 

পাকিস্তানের বিচারব্যবস্থা ঐতিহাসিকভাবেই রক্ষণশীল এবং পুরুষশাসিত। মানবাধিকার সংগঠনের মতে, এটিই দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র দেশ যেখানে সুপ্রিম কোর্টে কোনো নারী বিচারপতি ছিলো না। এ ছাড়া পাকিস্তান হাইকোর্টের মাত্র ৪ শতাংশ নারী।

 

অন্যান্য প্রার্থীদের তুলনায় আয়েশা জুনিয়র হওয়ায় অনেক আইনজীবী এবং বিচারক আয়েশাকে বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার বিরোধিতা করেন।

 

বিচারপতি আয়েশা মালিক পাকিস্তানের কলেজ অব ল এবং হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করেছেন। তিনি গত দুই দশক ধরে পাকিস্তানের লাহোর প্রদেশে হাইকোর্টের বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

তিনি লাহোরে পিতৃতান্ত্রিক আইনি ব্যবস্থাকে চ্যালেঞ্জ করার মতো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। গত বছর তিনি যৌন নিপীড়নের শিকার নারীদের ধর্ষণের পরীক্ষায় ভার্জিনিটি টেস্ট নিষিদ্ধ করেন।

 

ইসলামাবাদের আইনজীবী জারমিনেহ রাহিম বলেন, যদি পিতৃতান্ত্রিকতা এবং ইসলামের রক্ষণশীলতার ব্যাখ্যা দ্বারা নারীদের বেঁধে রাখা হয় তবে নারীরা মানব পুজিঁর বিকাশের যে ধারা তা থেকে পিছিয়ে যাবে।

 

তিনি বলেন, তবে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে একজন নারীর অবস্থান আমাদের সেই সংগ্রামের একটা ছোট্ট পদক্ষেপ।

 

গত বছর বিচারপতি আয়েশার এ পদে পদোন্নতি বাতিল করা হয়েছিলো এবং এখনো তার পদোন্নতি নিয়ে অনেকে সমালোচনা করেছেন।

 

বিচারপতি আয়েশা মালিক নিম্ন আদালতের চতুর্থতম জেষ্ঠ্য বিচারক ছিলেন যেখান থেকে পদোন্নতি পেয়ে তিনি বিচারপতি হয়েছেন।

সুত্র:এবিএন

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam