তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৭:০৯ অপরাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
সিলেট ’ল কলেজের চারশত আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিল ছাত্রলীগ ঘোড়াঘাটে রোপনকৃত ভূট্টা ক্ষেতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার প্রতারণার অভিযোগে ভুয়া সীমানা পিলার- খেলনা পিস্তলসহ নারী আটক ইবিতে ‘গ্লোবাল সিটিজেনশিপ এন্ড সিভিক এডুকেশন’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত সান্তাহারে রেলওয়ে শ্রমিকলীগ নেতা শামীমের ইন্তেকাল : শোক প্রথম বারের মত অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ-ভারত সাংবাদিক ফ্রেন্ডশিপ ফুটবল ম্যাচ বড়লেখায় ভোক্তার অভিযানে ৩টি প্রতিষ্টানকে জরিমানা ডোমারে ট্রাফিক পুলিশের সচেতনতামূলক প্রচারণা জলঢাকা জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সভাপতি রাজ,সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ঘোড়াঘাটে যুবকের লাশ উদ্ধার

বাউল ইসলাম উদ্দিনের জীবনাবসান

  • প্রকাশ শনিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ১২.৩৩ পিএম
  • ৭৩ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ মারা গেলেন বাউল ইসলাম উদ্দিন। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় নিজ বাড়িতে মারা যান তিনি (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। ২০১৮ সালের জুলাইয়ে স্ট্রোক করে প্যারালাইসিস অবস্থায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন বাউল ইসলাম উদ্দিন। তার বাড়ি নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের খিদিরপুর গ্রামে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে অন্যত্র স্থানান্তরের পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু অর্থের অভাবে তা হয়নি। প্রায় তিন বছর ধরে জনপ্রিয় এই শিল্পী অসুস্থ ছিলেন। কিছুদিন আগেও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন এই শিল্পী। এরপর থেকে অনেকটা বিনা চিকিৎসায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বাড়িতে চরম কষ্টে দিন কাটাচ্ছিলেন তিনি। জানা গেছে, অর্থাভাবে তার একমাত্র মেয়ের পড়ালেখাও বন্ধ হয়ে গেছে। স্বামীর চিকিৎসা, মেয়ের পড়ালেখা আর সংসারের খরচ চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন তার স্ত্রী লিয়া খানম। কোনো সম্পদও নেই তাদের। ইসলাম উদ্দিন ছোটবেলা থেকেই গানে মগ্ন ছিলেন। ছাত্রজীবনে মামা রঙ্গু মিয়ার কণ্ঠে গান শুনে সঙ্গীতের প্রতি আসক্ত হন। এরপর প্রখ্যাত বাউল আবেদ আলীর শিষ্যত্ব গ্রহণ করে বাউল গান ও বাউল শাস্ত্রের তালিম নেন। কৈশোরেই তিনি সঙ্গীত শিল্পী হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। গানই ছিল তার জীবিকার একমাত্র অবলম্বন। এদিকে তার মৃত্যুতে নেত্রকোনা ৩ আসনের এমপি অসীম কুমার উকিল ও নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমানসহ বিভিন্ন সংগঠনের ব্যক্তিরা শোক প্রকাশ করেছেন। ১৯৯২ সালে কেন্দুয়ার কুতুবপুর গ্রামের এক আসরে বাউল গান গেয়ে তিনি জননন্দিত কথা সাহিত্যিক ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের দৃষ্টিতে আসেন। পরবর্তীতে তার ঘনিষ্ঠ সহচর হয়ে ওঠেন। হুমায়ূন আহমেদের ‘উড়ে যায় বক পক্ষী’, ‘চন্দ্র কারিগর’, ‘মন্ত্রী মহোদয়ের আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতমসহ ১৩টি নাটক, দুটি চলচিত্র ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ ও ‘নয়ন নম্বর বিপদ সংকেত’ এবং তিনটি বিজ্ঞাপন চিত্রে গান ও অভিনয় করেছেন তিনি। নব্বই দশক ও তার পরবর্তী সময়ে দেশজুড়ে পরিচিতি পান তিনি।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam