তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আর্থিক শৃঙ্খলার জন্য অডিট রিপোর্ট সঠিক হওয়া প্রয়োজন                                                                           — বাণিজ্যমন্ত্রী ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি ৪০ দিনেই ৪০ কোটি টাকার বেশি খাজনা আদায় লালমনিরহাটে সাংবাদিকদের উপরে হামলার ঘটনায় প্রাধান আসামি গ্রেপ্তার  আটোয়ারীতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কলেজ ছাত্রের মৃত্যূ পিরোজপুরে র‌্যাবের অভিযানে এক যুবকে গ্রেপ্তার মৌলভীবাজারে ডিমের দোকানে ভোক্তার অভিযান, ৩টিতে জরিমানা দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার খানসামা উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আগামী মাসে সমন্বয় করা হবে তেলের দাম, থাকবে না লোডশেডিং

আঙুর নাকি কিশমিশ, স্বাস্থ্যের জন্য কোনটি বেশি উপকারী

  • প্রকাশ মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২২, ১০.১৫ এএম
  • ৪৬ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ বাঙালি বহু রান্নায় কিশমিশ ব্যবহার হয়। পোলাও-পায়েসে এক মুঠো কিশমিশ দিলে স্বাদ কয়েক গুণ বেড়ে যায়। অনেকেই আবার দিনে বেশ কয়েকটি কিশমিশ খান সুস্বাস্থ্যের জন্য। কিশমিশ শরীরে শক্তি জোগায়, হাড় মজবুত করে। কিশমিশে থাকে ফাইবার, প্রোটিন, আয়রন, পটাশিয়াম, কপার।

সারা রাত পানিতে কয়েকটি কিশমিশ ভিজিয়ে রেখে সকালে খালি পেটে খেলে তা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। কিন্তু আঙুর না কি কিশমিশ, কোনটি বেশি স্বাস্থ্যকর তা নিয়ে জনমানসে প্রচুর দ্বন্দ্ব আছে। একটি কাঁচা, অন্যটি শুকনো— এই দু’টি পার্থক্য ছাড়াও পুষ্টিগুণেও পার্থক্য রয়েছে। আঙুর রোদে বা হাওয়ায় শুকিয়ে বানানো হয় কিশমিশ। আর সেই প্রক্রিয়াতেই হেরফের হয়ে যায় দুইয়ের পুষ্টিগুণ। শারীরিক অবস্থার উপর নির্ভর করে আঙুর অথবা কিশমিশ খাওয়া প্রয়োজন।

আঙুর শুকিয়ে তৈরি করা হয় কিশমিশ। তাই এতে শর্করা অনেক ঘন হয়ে যায়। ডায়াবিটিসে আক্রান্তদের ক্ষেত্রে কিশমিশ অনেক বেশি ক্ষতিকারক হয়ে উঠতে পারে। পরিবর্তে ডায়াবিটিক রোগীরা আঙুর খেতে পারেন। আঙুরে তুলনামূলক সমস্যা কম। তবে ডায়াবিটিস থাকলে আঙুর খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নেয়া জরুরি।

চিনির মতো কিশমিশে ক্যালোরির পরিমাণও অনেকটা বেশি। কিশমিশের শাঁসের ঘনত্ব বেশি বলে ক্যালোরির পরিমাণও অনেকটা। কিশমিশের তুলনায় আঙুরে ক্যালোরির পরিমাণ খুবই কম। প্রায় নেই বললেই চলে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে কিশমিশের চেয়ে আঙুর অনেক বেশি উপকারী। তবে কিশমিশে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টের পরিমাণ অনেক বেশি। শরীরের দূষিত পদার্থ বার করে দিতে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট দারুণ কার্য়করী।

তবে পুষ্টিবিদরা বলছেন, আঙুর বেশি উপকারী কারণ এতে পানির পরিমাণ অনেক বেশি। কিশমিশে পানি নেই বললেই চলে। এ ছাড়াও আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, ই, সি, ভিটামিন বি১, বি২-এর মতো উপকারী পুষ্টিগুণ। কিশমিশ শরীরের বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদানের ঘাটতি তৈরি করে। সূত্র: আনন্দবাজার

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam