তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন

জ্বলে ওঠা পিএসজির ফ্রন্টলাইনের আগুনে পুড়লো ক্লেমন্ট ফুট

  • প্রকাশ রবিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২২, ৫.৪৭ এএম
  • ৮৫ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ  ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনের (পিএসজি) ফ্রন্টলাইনের তিন ফুটবলারের নাম শুনলে মাঠে নামার আগেই ম্যাচ হারার শঙ্কা পেয়ে বসার কথা যে কোন দলের ডিফেন্ডারদের। কিন্তু নিজেদের নামের প্রতি সেই সুবিচার করতে পারেছিলেন না মেসি, নেইমার আর এমবাপ্পে। ব্যক্তিগতভাবে দুর্দান্ত হলেও তিনজনের খেলায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না কোনো মেলবন্ধন। তবে দুর্ধর্ষ এই ট্রায়ো একসাথে জ্বলে উঠলে যে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারের কি হাল হতে পারে তা বেশ ভালোই টের পেয়েছে ক্লেমন্ট ফুট। নেইমার আর এমবাপের গোলের হ্যাট্ট্রিক আর মেসির অ্যাসিস্টের হ্যাট্ট্রিক মিলিয়ে ক্লেমন্ট ফুটকে ৬-১ গোলে হারিয়েছে পিএসজি।

নিজের আপন ঠিকানা বার্সা ছেড়ে এই মৌসুমের শুরুতেই পিএসজিতে যোগ দেন আর্জেন্টাইন লিওনেল মেসি। সেই থেকেই পিএসজি ভক্তদের সাতবারের ব্যালনজয়ী মেসি, ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার আর হালের ফরাসি স্ট্রাইকার এমবাপ্পেকে একসাথে ছন্দ মেলাতে ফুটবলের সবুজ পিচে। তবে ভক্তদের সেই আশা পূরণ করতে যেন কিছুটা সময়ই নিলেন এই তিন তারকা।কিছুটা দেরিতে হলেও এক সঙ্গে জাদু দেখাতে শুরু করেছেন পিএসজির ফ্রন্ট ট্রায়ো। আজকের আগের ম্যাচেই মেসি, নেইমার, এমবাপ্পে প্রথমবারের মতো একই ম্যাচে গোলউৎসব করেছিলেন। গত ম্যাচের তিন তারকার গোলউৎসব ছাপিয়ে গেলো আজকের ম্যাচের তিন তারকার পারফরম্যান্স। মেসি যদিও আজ গোল পাননি, তবে করেছেন তার কাজের কাজটিই। গোল করা ভার্সেটাইল মেসির প্রথাগত কাজও না, গোল করানোটাই মেসির ধাঁতে যায় বেশি। আজ করেছেন মেসি করেছেন সেই গোল করানোর হ্যাট্ট্রিক। আর পেছন থেকে মেসির প্লেমেকিংয়ে দলের মূল স্ট্রাইকার এমবাপ্পে আর উইঙ্গার নেইমার তুলে নিয়েছেন নিজেদের হ্যাট্ট্রিক। সাথে অবশ্য এই দুজনের নামের পাশেও আছে একটি করে অ্যাসিস্ট।

ম্যাচের ৬ মিনিটেই মেসির পাস থেকে পিএসজিতে গোল উৎসবের শুরুটা করেন নেইমার। নেইমারের গোলের খানিক বাদেই মেসির আরেকটি পাস খুঁজে পায় এমবাপ্পেকে। সাত বারের ব্যালন ডিঅর জয়ীর সেই পাস থেকে গোল করতে একটুখানিও ভুল করেননি ফরাসি গতিতারকা। প্রথমার্ধ্বের খেলা শেষের মিনিট তিনেক আগে একটি গোল শোঢ করে দেয় ক্লেমন্ট ফুট। তাতে অবশ্য বিশেষ ক্ষতি হয়নি পিএসজির। ২-১ গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় লিগ-ওয়ানের টেবিল লিডাররা।

দ্বিতীয়ার্ধ্বে যেন আরও বেশি ধারালো হয়ে মাঠে নামে পিএসজির ফ্রন্ট ট্রায়ো। আক্রমণের পর আক্রমণ করে তটস্থ করে তোলে ক্লেমন্ট ফুটের রক্ষণভাগকে। একটু দেরিতে হলেও ৭১ মিনিটে তিন নাম্বার গোলটি পেয়ে যায় পিএসজি। এবার অবশ্য পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার।গোল দুটো করে ফেলার পর এবার একটু গোল করানোর কাজেও যোগ দেন নেইমার। নিজের গোলের কয়েক সেকেন্ড পরেই এমবাপ্পেকে বল বাড়ান নেইমার, সেই বল ধরেও ঠিকই জালে পাঠান এমবাপ্পে।

মিনিট ছয়েক পর আবারও দৃশ্যপটে মেসি, আবারও অ্যাসিস্ট। মেসির হ্যাট্ট্রিক অ্যাসিস্টে নিজের হ্যাট্ট্রিক পূরণ করেন এমবাপ্পে। নিজের হ্যাট্ট্রিক পূরণ করে এবার এমবাপ্পেও যেন পণ করে বসেন গোল করাবেন তিনিও। তাই তো নিজের হ্যাট্ট্রিকে পাশাপাশি ৮৩ মিনিটে সতীর্থ নেইমারকে দিয়েও করান হ্যাট্ট্রিক। এমবাপ্পের বাড়িয়ে দেয়া বল থেকে নিজের নামের পাশেও হ্যাট্ট্রিকের ট্যাগলাইন লাগিয়ে নেই নেইমার।

৬-১ গোলের জয় নিয়েই প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে ফেরে মরিসিও পচেত্তিনোর দল। এই জয়ে ৩১ ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শিরোপার আরও একটু কাছে চলে গেলো পিএসজি। শিরোপার লড়াইয়ে লিগ টেবিলের দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা রেনে ও মার্শেই দুই দলেরই পয়েন্ট ৫৬। জয় বা পয়েন্ট ছাপিয়ে আজকের ম্যাচের পিএসজির সমর্থকদের প্রাপ্তিটা বেশি যেন মেসি, নেইমার আর এমবাপ্পের একসাথে জ্বলে ওঠা। আর এই বিধ্বংসী ট্রায়ো একত্রে জ্বলে উঠলে যে প্রতিপক্ষের কি হাল হতে পারে তা যেন ভালোই বুঝতে পেরেছে এবার ফুটবল বিশ্ব।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam