তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০২:৪৪ অপরাহ্ন

দত্তের সন্দেশ এবার যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে, মুখ্যমন্ত্রী মমতার বাড়ি

  • প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২, ৯.০৮ এএম
  • ৫২ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ গোপালগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ‘দত্ত মিষ্টান্ন ভাণ্ডার’-এর ‘সন্দেশ’ যাচ্ছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে। আজ পহেলা বৈশাখ গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসনের হাত হয়ে ২০ কেজি সন্দেশ সড়ক পথে পাঠানো হয়েছে যশোর জেলা প্রশাসনের হাতে। সেখান থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ম্যাজিস্ট্রেট ও ভূমি হুকুমদখল শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আল ইয়াসার রহমান তাফাদার।তিনি জানান, বৃহস্পতিবার ভোররাত ৪টায় গোপালগঞ্জ শহরের কোর্ট এলাকার দত্ত মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের ২০ কেজি সন্দেশ নিয়ে রওনা হই।

সকাল ৭টার দিকে যশোর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এনডিসি কে এম মামুন আর রশিদের কাছে ২০ কেজি সন্দেশ হস্তান্তর করি। যশোর অফিস অন্যান্য উপহারের সঙ্গে আমাদের গোপালগঞ্জ জেলার সন্দেশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে নববর্ষের উপহার হিসেবে পাঠাবেন।উল্লেখ্য, গোপালগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী দত্তের সন্দেশের নাম রয়েছে গোপালগঞ্জসহ সর্বত্র। দেশের বিভিন্ন জেলায় এ মিষ্টির কদরের পাশাপাশি দেশের বাইরেও বেশ সুনাম রয়েছে। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবদের জন্য এ দোকানের মিষ্টি কিনে থাকেন অনেকেই।শুধু তাই নয়, এ মিষ্টির দোকানের সন্দেশ ও রসগোল্লা আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও বেশ পছন্দ এবং তিনি মাঝে মাঝেই এ দোকানের মিষ্টি বঙ্গভবনে নিয়ে থাকেন এবং টুঙ্গিপাড়ায় আসলে এ দোকানের সন্দেশ ও রসগোল্লা বাসায় নেন বলে জানিয়েছেন দোকানের মালিক সবুজ কুমার দত্ত। তিনি বলেন, ‘গোপালগঞ্জের সবার পছন্দ এই দোকানের সন্দেশ ও রসগোল্লা। বিগত ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে দত্ত মিষ্টান্ন ভাণ্ডার প্রয়াত সুধীর কুমার দত্তের (বাবা) হাত ধরে সুনামের সাথে চলে আসছে। ‘

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam