তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭:২২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
আদমদীঘিতে স্বামীর অপমৃত্যু মামলায় স্ত্রী গ্রেপ্তার সান্তাহারে ৪০ দিনের কর্মসৃজন কাজের উদ্বোধন রাজনগরে আসামি নিয়ে ফেরার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় এসআই নিহত, আহত ৭ লালমনিরহাটে জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণ অনুষ্ঠিত ফাঁকিবাজ শিক্ষকদের শাস্তিযোগ্য বদলি প্রয়োজন: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী লালমনিরহাট সদর উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ রোভার শিক্ষক মোঃ লিয়াকত আলী সরকার নির্বাচিত তজুমদ্দিনে মেঘনা ঘূর্ণিবাতাসের দুই জেলে ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে পাঁচবিবিতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৪ ছিনতাইকারীসহ ২০ জন আটক উলিপুরে হতদরিদ্রদের মা‌ঝে শাড়ী লু‌ঙ্গি বিতরণ  

সৈয়দপুরে ভেজাল সেমাই তৈরির মহোৎসবকারখানায় নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, ব্যবাহার করা হচ্ছে নিমানের উপকরণ

  • প্রকাশ বুধবার, ২০ এপ্রিল, ২০২২, ৯.৫৬ এএম
  • ৪৮ বার ভিউ হয়েছে

মো. জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি :ঈদুল ফিতর মানে হচ্ছে সেমাইর ঈদ। সেমাই ছাড়া যেন এ উৎসবের পরিপূর্ণতা পায় না। এ উৎসব সামনে রেখে উত্তরের বাণিজ্যিক শহর নীলফামারী সৈয়দপুরে ভেজাল সেমাই তৈরির মহোৎসব লেগেছে। পাড়া- মহাল্লাহ ও অলিগলিতে গড়ে উঠেছে প্রায় দু’শতাধিক লাচ্ছা সেমাই তৈরির কারখানা। আর এ সব কারখানায় নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নিমানের সব উপকরণ দিয়ে দেদারছে তৈরি হচ্ছে সেমাই। এসব সেমাই খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলে মন্তব্য করেছেন চিকিৎসকরা।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ সেমাই তৈরির কারখানা বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউটের (বিএসটিআই) অনুমোদন ছাড়া প্রতিষ্ঠিত। এছাড়া যে সকল কারখানা গড়ে উঠেছে সেগুলোতে মানা হচ্ছে না কোন হাইজিন নিয়মনীতি। নামি-দামি অনেক কোম্পানির লেভেল লাগিয়ে স্থানীয়ভাবে তৈরি এসব সেমাই বাজারজাত করে আসছে মালিকরা। মানুষের খাওয়ার জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এসব সেমাই সৈয়দপুর শহরের চাহিদা মিটিয়ে স্থানীয় হাট-বাজার ছাড়াও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা শহরে অবাধে পাঠানো হচ্ছে। হাতেগোনা কয়েকটি সেমাই তৈরির বৈধ কারখানা থাকলেও তারা বিপাকে পড়েছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীদের দাপটে।
শহরের পাটোয়ারীপাড়া, কাজীরহাট, পুরাতন বাবুপাড়া, বাঁশবাড়ি, মিস্ত্রিপাড়া, হাতিখানা, নিয়ামতপুর, মুন্সিপাড়া, গোলাহাটসহ আনাচে কানাচে মৌসুমী সেমাইয়ের কারখানা চালু করা হয়েছে। এ সব কারখানা থেকে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ বিভিন্ন নামে সেমাই বাজারজাত করা হচ্ছে। এ সব সেমাই প্রতিদিন রিক্সাভ্যান ও ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সায় শহর ও গ্রামের হাট বাজারে সরবরাহ করা হচ্ছে। উৎপাদনে যাওয়া এ সব অস্থায়ী কারখানায় গড়ে দৈনিক ৪০০ থেকে ৫০০ খাঁচি (প্রতি খাঁচিতে ১৮ কেজি) সেমাই উৎপাদন হচ্ছে। যেখানে স্থায়ী কারখানাগুলোতে উৎপাদিত হচ্ছে গড়ে প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ খাঁচি।
শহরের শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কের একটি দোকানে সেমাই কিনতে আসা ক্রেতা আতাহার হামিদ বলেন, এতগুলো নামে বেনামে সেমাই পাওয়া যাচ্ছে কোন টা আসল আর কোন টা নকল বুঝাই যাচ্ছে না। বাঁচ্চা সেমাই খাওয়ার আবদার করছে তাই বাধ্য হয়েই কিনছি। প্রশাসনের দুর্বলতার সুযোগে ও নিয়মিত স্যানিটারি ইন্সপেকশনের অভাবে সৈয়দপুরে ভেজাল সেমাই তৈরির প্রবণতা বাড়ছেই।
স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সৈয়দপুর জেলা শাখার সভাপতি বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. শেখ নজরুল ইসলাম জানান, এসব সেমাই খেয়ে পেটে পীড়া, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হতে পারে। তাই সুস্থ্য থাকতে হলে এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শামসুল আলম জানান, পঁচা ডিম, এ্যানিমেল ফ্যাট এবং কৃত্রিম ঘি ও সুগন্ধি মিশ্রিত সেমাই তৈরি যাতে না হয় সেজন্য কারখানাগুলোতে নজরদারি রাখা হয়েছে। এছাড়া অনুমোদনহীন সেমাই কারখানাগুলোর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যস্থা নেওয়া হবে। সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামীম হুসাইন জানান, খাদ্যে ভেজালকারীর বিরুদ্ধে অভিযান চলমান রয়েছে। দুই একদিনের মধ্যে অভিযান জোরালোভাবে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam