তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আর্থিক শৃঙ্খলার জন্য অডিট রিপোর্ট সঠিক হওয়া প্রয়োজন                                                                           — বাণিজ্যমন্ত্রী ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি ৪০ দিনেই ৪০ কোটি টাকার বেশি খাজনা আদায় লালমনিরহাটে সাংবাদিকদের উপরে হামলার ঘটনায় প্রাধান আসামি গ্রেপ্তার  আটোয়ারীতে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে কলেজ ছাত্রের মৃত্যূ পিরোজপুরে র‌্যাবের অভিযানে এক যুবকে গ্রেপ্তার মৌলভীবাজারে ডিমের দোকানে ভোক্তার অভিযান, ৩টিতে জরিমানা দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার খানসামা উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আগামী মাসে সমন্বয় করা হবে তেলের দাম, থাকবে না লোডশেডিং

আইবিএস অন্ত্রের ক্রনিক রোগ

  • প্রকাশ রবিবার, ১ মে, ২০২২, ৮.২০ এএম
  • ৭৬ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্কঃ আইবিএস কেন হয়—এ ব্যাপারে স্পষ্ট কোনো ধারণা নেই। বিজ্ঞানীদের অনুমান, মগজের সঙ্গে বাওয়েলের সংকেত ব্যাহত হলে এমন হতে পারে। পরস্পর যোগাযোগে ভ্রান্তি ঘটলে ভুল বার্তা যায়, আর তখন অন্ত্রের পেশিগুলোতে শুরু হয় সংকোচন। শুরু হয় পেটে খিঁচুনি, ব্যথা আর পরিপাকের গতিতে পরিবর্তন।

 

লক্ষণ

♦ পেট মোচড় দিয়ে ওঠা, ব্যথা, অস্বস্তি

♦ পেট ফাঁপা, খুব বেশি গ্যাস

করণীয়

নির্ণয়ের তেমন টেস্ট নাই, তবে রোগীর উপসর্গের বিবরণ শুনে রোগটি নির্ণয় করেন ডাক্তার। এর চিকিৎসার নির্দিষ্ট ওষুধ নাই, তবে জীবনযাপনে পরিবর্তন আনতে হবে। যেমন :

♦ নিয়মিত ব্যায়াম এই রোগের উপসর্গে আরাম দেয়।

♦ স্ট্রেস মোকাবেলা করা। ব্রিদিং ব্যায়াম। ইয়োগা, হাঁটা, ভালো ঘুম—এসব বেশ কাজে দেয়।

♦ ডায়েরি ব্যবহার করতে পারেন। এতে লিখে রাখুন—আপনার উপসর্গ সব, কী কী খেলে রোগ বাড়ে। মদ বা স্ট্রেস হলে রোগ বাড়ে কি না।

♦ এক সঙ্গে বেলার খাবার বেশি করে না খেয়ে কম করে বেশিবার খান, চর্বি এবং চিনি কম—এমন সব খাবার খেলে ভালো। ফল আর সবজি খাওয়া।

♦ কোষ্ঠবদ্ধতা হলে আঁশসমৃদ্ধ খাবার খাবেন। অ্যালকোহল, পান ধূমপান ছাড়তে হবে। চা-কফি যত কম তত ভালো। যেসব খাবার খেলে গ্যাস হয় সেগুলো বাদ দেওয়া। শিম জাতীয় সবজি, ব্রকলি, স্প্রাউট, বাঁধাকপি, মুলা। কোমল পানীয় বাদ দিলে ভালো।

♦ দুধ খেলে অস্বস্তি হয় কি না, অনেকের দুধের শর্করা ল্যাকটোজ সহ্য হয় না।

♦ খাওয়া-দাওয়া যেন নিয়মিত হয়। খেতে হবে—ধীরে ধীরে চিবিয়ে বসে খান। মনোযোগ দিয়ে খান। বেশি রাতে খাবেন না।

ওষুধপত্র

উপসর্গ বিশেষে ওষুধ দিতে পারেন ডাক্তার। অনেক সময় বিষণ্নতারোধী বা পেটের মোচড় রোধের ওষুধ। লাগতে পারে সাইকো থেরাপি। মাইন্ডফুলনেস। ক্রনিক এই অসুখকে রাখতে হবে সামলে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam