তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১০:১৩ অপরাহ্ন

গাইবান্ধায় মৃত্যুর ৯ মাস পর বৃদ্ধা বাছিরন ফিরে আসার গুজবে টালমাটাল পুরো শহর

  • প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ১২ মে, ২০২২, ২.১৫ এএম
  • ৩৩ বার ভিউ হয়েছে
ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃগাইবান্ধা জেলা শহরের ডেভিড কোম্পানীপাড়ার ৯৫ বছর বয়সী বাছিরন নামের এক বৃদ্ধার কবর দেয়ার ৯ মাস পর ফিরে আসার গুজব বুধবার (১১ মে) ছড়িয়ে পড়েপুরো শহর জুরে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে মৃত বাছিরনের ফিরে আসার গুজবে তার মেয়ে মাজেদা বেগমের বাড়িতে লোকজনের ভীড়ও বাড়তে থাকে।
গাইবান্ধা রেল স্টেশন সংলগ্ন উত্তর পাশে ডেভিড কোম্পানীপাড়ার মৃত আনিছুর রহমানের স্ত্রী মাজেদা বেগমের বাড়িতে বাছিরনকে এক নজর দেখতে মানুষের ভীড় উপচে পড়ে। তিনি ওই মহিলাকে নিজের মা দাবি করে বলেন, গত ৯ মাস আগে আমার মা মারা যান। তাকে গাইবান্ধা পৌর কবরস্থানে দাফন করা হয়। কিন্তু গত মঙ্গলবার রাতে আমার মা স্টেশনে এসে ভাই গেদাকে খোঁজ করেন। পরে লোকজন গেদাকে খুঁজে এনে মায়ের সাথে দেখা করিয়ে দেন। আমি খবর পেয়ে স্টেশনে গিয়ে মাকে বাসায় নেয়ার চেষ্টা করলে তিনি রাজি হননি। আমরা সারারাত তার সাথে স্টেশনে কাটাই। পরে (আজ) বুধবার সকাল ৭টায় বাড়িতে এসে তার থাকা ঘরে প্রবেশ করেন। তিনি নাতি-নাতনিদেরকেও নাম ধরে ডাকেন।
একপর্যায়ে লোকজনের ভীড় সামলাতে পুলিশ এসে কথিত ফিরে আসা বাছিরনকে থানায় নিয়ে যায়।এ ব্যাপারে স্থানীয় শফিকুল ইসলাম রুবেলসহ একাধিক ব্যক্তি বলেন, ৯ মাস আগে আমরা মাজেদা ও গেদার মা বাছিরন বেওয়াকে কবরস্থ করেছি। তার ফিরে আসার প্রশ্নই ওঠে না। এর পেছনে কোনো মারাত্মক  রহস্য রয়েছে।যা ছেলে মেয়ের স্বীয় স্বার্থসিদ্ধির কারন ও হতে পারে বলে মনে করছেন অভিজ্ঞ মহল।
গাইবান্ধা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি ডেভিড কোম্পানীপাড়ার বাসিন্দা আলমগীর কবির বাদল বলেন, যে মানুষকে কবর দেয়া হয়েছে তার ফিরে আসা অবাস্তব এবং অকল্পনীয়  এটা তার ছেলেমেয়ের কোনো অসৎ উদ্দেশ্যের কারসাজি হতে পারে।
এ ব্যাপারে গাইবান্ধা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদুর রহমান জানান, আনুমানিক ৬০/৬৫ বছরের ওই মহিলা খুলনা জেলা থেকে মঙ্গলবার রাতে গাইবান্ধা রেল স্টেশনে আসেন। তিনি বেশ দুর্বল, বেশিক্ষণ কথা বলতে পারেন না। তার নাম পদ্ম বলে তিনি জানান। রেল স্টেশন সংলগ্ন বাড়ির মাজেদা বেগম তাকে তার মায়ের মত দেখতে মনে হলে কাছে গিয়ে মা ডাকেন। এরপর বেশকিছু সময় কথাবার্তা বলে তাকে বাড়িতে নিয়ে যান। এরপর ওই বৃদ্ধাকে মাজেদা বেগম ও তার বড় ভাই গেদা নিজের মা বলে প্রচার করলে এলাকার লোকজন তাকেএক নজর দেখার জন্য ভীড় করতে থাকে। এ গুজবের নেপথ্যের কারন খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam