তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
গরিব মানুষের দুঃসময় কেটে যাবে : অর্থমন্ত্রী ইভ্যালি নতুন করে চালুর আবেদন পাপারাজ্জিদের সঙ্গে তর্কে জড়ালেন তাপসী সংকট সাময়িক, মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযোগ্য সম্মান ও সম্মানী শেখ হাসিনার সরকার-ই দিয়েছে  –পরিবেশ মন্ত্রী ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা প্রার্থী প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ উলিপুরে ঔষধ ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা, আসামী গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন মৌলভীবাজারে ভোক্তার অভিযোগের ভিত্তিতে ৩ প্রতিষ্টনকে জরিমানা করোনায় আরও ১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯৮ ৩১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ধুকছে জিম্বাবুয়ে

ট্রেনে কাটা পড়ে বাংলাদেশী ছাত্রীর মৃত্যু: পুলিশি তদন্তে অসন্তুষ্ট পরিবার

  • প্রকাশ সোমবার, ১৬ মে, ২০২২, ৬.৫৭ এএম
  • ৪৫ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: গত বুধবার দিবাগত রাতে নিউইয়র্কের ব্রুকলীনের এক সাবওয়ে (পাতাল ট্রেন) ষ্টেশনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কলেজ ছাত্রী জিনাত হোসেন (২৪) নামের এক তরুণী ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশের তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, জিনাত হোসেন আত্মহত্যা করেছে। তবে পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট মানতে নারাজ তার পরিবার ও প্রবাসীরা।শনিবার (১৪ মে) স্থানীয় সময় দুপুরে নিউইয়র্কের ব্রুকলিনের বায়তুল জান্নাহ মসজিদে জিনাতের জানাজার আগে তার নানা মো. কবীর সমবেতদের উদ্দেশে বলেন, ‘জিনাত আত্মহত্যা করেছে বলে পুলিশের রিপোর্টে বলা হয়েছে। কিন্তু এটা আমরা মনে করি না।’

পুলিশ রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘ওপর থেকে পড়ে মৃত্যু’। এটা আসলে ‘হেইট ক্রাইম’। এর প্রতিবাদে কমিউনিটিকে ঐক্যবদ্ধ হতে আহ্বান জানান মো. কবীর। আমির হোসেন ও জেসমীন হোসেন দম্পতির একমাত্র মেয়ে জিনাত নিউইয়র্কের হান্টার কলেজের ছাত্রী ছিলেন, তাদের বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার জগতপুর গ্রামে। বুধবার রাতে ম্যানহটান থেকে ব্রুকলিনগামী ট্রেনের ৫৫ স্ট্রিট সাবওয়ে থেকে ২৩ বছর বয়সী ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কলেজের ক্লাস শেষে বাসায় ফেরার পথে ওই জায়গায় তার মৃত্যু হয়।

জিনাত তার মা-বাবার সঙ্গে নিউইয়র্কের অস্টম অ্যাভিনিউ এবং ৪২ স্ট্রিটের এক বাসায় থাকতেন। ২০১৫ সালে অভিবাসী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন তিনি। তার একমাত্র বড় ভাই আবিদ হোসেন রাজধানী ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন করছেন। ১৪ মে (শনিবার) জানাজার সময় জিনাতের কফিনের পাশে তার বাবা আমির হোসেনকে দেখা যায় শোকে বাকরুদ্ধ অবস্থায়। তিনি বার বার কফিন ছুঁয়ে মেয়েকে অনুভব করতে চাইছিলেন।

জানাজা শেষে জিনাতের কফিন মসজিদের সামনে আনার পর হুইল চেয়ারে মা জেসমীন হোসেন কান্নায় ভেঙে পড়েন। স্বজনদের আহাজারিতে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। পরে নিউজার্সিতে দাফন করা হয় জিনাতকে। তার খালু যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গমাতা পরিষদের প্রেসিডেন্ট ডা. এনামুল হক জানান, তারা জিনাতের মৃত্যুর প্রকৃত তথ্য নিয়ে ‘পুলিশের লুকোচুরির প্রতিবাদে’ সমাবেশ ও প্রেস কনফারেন্স করবেন।

‘সাউথ এশিয়ান আমেরিকান ফান্ড ফর এডুকেশন অ্যান্ড ট্রেনিং’ (স্যাফেস্ট) নামে প্রবাসীদের একটি সংগঠনও জিনাতের মৃত্যুর ঘটনায় স্থানীয় সময় ১৬ মে (সোমবার) দুপুরে সিটি মেয়র অফিস সংলগ্ন সিটি হলের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। জিনাতের মৃত্যুর সঠিক কারণ তদন্ত ও নাগরিকদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়ে ওই কর্মসূচিতে প্রবাসীদের অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এ সংগঠনের প্রধান নির্বাহী মাজেদা উদ্দিন।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam