তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:০৩ পূর্বাহ্ন

উলিপুরে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

  • প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৫.১২ এএম
  • ২৩ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪ ডট কম ডেস্ক:  সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। আর ২৩দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এই বড় উৎসব। এজন্য মূর্তি তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার কারিগররা। সনাতনী পঞ্জিকা অনুযায়ী, আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর হবে মহালয়া। ১ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে ষষ্ঠ্যাদী কল্পারম্ভ বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাস। পরদিন ২ অক্টোবর সপ্তমী তিথিতে নব পত্রিকা প্রবেশন্তে সপ্তমী বিহিত পূজা। ৩ অক্টোবর মহাঅষ্টমী ও সন্ধী পুজা। ৪ অক্টোবর মহানবমী পূজা এবং ৫ অক্টোবর দশমী বিহিত পুজান্তে দর্পন বিসর্জন। উপজেলার বিভিন্ন পূজাম-প ও প্রতিমা তৈরির কারখানা ঘুরে দেখা গেছে, কাদা-মাটি, বাঁশ, খড়, সুতলি দিয়ে শৈল্পিক ছোঁয়ায় তিলতিল করে গড়ে তোলা দেবীদুর্গার প্রতিমা তৈরিতে দিনরাত ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা কারিগররা। প্রতিমা তৈরির ব্যবসায়ী কারিগর গোবিন্দ রায় (৪০) বলেন, বাজারে সব কিছুরই দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিবছর এ সময় ১০ থেকে ১২টি প্রতিমা তৈরি করে থাকি। এ বছর মাত্র ৭টি প্রতিমা তৈরির কাজ করছি। কি হবে জানিনা। এখন পর্যন্ত কেউ পূজা মন্ডপে প্রতিমা নেয়ার জন্য বায়না দিতে আসে নাই। তারপরও মনে সাহস নিয়ে প্রতিমা তৈরির কাজ করে যাচ্ছি। প্রতিটা প্রতিমা তৈরিতে খরচ হয় ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা।

প্রতিমা কারিগর রামকৃষ্ণ ওরফে কাশীনাথ রায় (৪৫) এর স্ত্রী স্মৃতি রানী জানান, প্রতিবছর ১২ থেকে ১৪ টি প্রতিমা তৈরি করে থাকি। স্বামীর পায়ের সমস্যার কারণে এবার দুজন মিলে ৭টি প্রতিমা তৈরি করছি। একই ধরণের কথা জানালেন সুজন চন্দ্র মহন্ত (৩০)। বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুনীল চক্রবর্তী ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিপ্লব মজুমদার বলেন, সময়সূচী অনুযায়ী পুজা সমাপন করা এবং প্রত্যেক মন্ডপে চন্ডীপাঠ করতে হবে। ধর্মীয় গান ছাড়া কোন ধরণের অশ্লীল গান বাজানো চলবে না। আযান ও নামাজের সময়সূচী মেনে চলতে হবে। উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা বলেন, এবারে পুজায় আলোকসজ্জা হবে না। করোনাভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা করতে হবে। তবে এ সম্পর্কিত কোন নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। এবছর উপজেলায় ১২০থেকে ১২৫টি পূজাম-পে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির বলেন, পূজাম-প গুলোতে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা থাকবে। কোথাও কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটতে দেয়া হবে না। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল কুমার জানান, আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব মূখর পরিবেশে হয় সে ব্যবস্থা ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam