তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:০৬ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে হচ্ছে ডিজিটাল আর্কাইভ

  • প্রকাশ বুধবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২২, ৩.৪৯ এএম
  • ৩১ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪ ডট কম ডেস্ক : ডিজিটাল ব্যবস্থায় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংরক্ষণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। দেশের জীবিত ৮০ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার সাক্ষাৎকার নিয়ে গড়ে তোলা হবে এই ডিজিটাল সংরক্ষণাগার বা ‘ই-আর্কাইভ’। এজন্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ‘বীরের কণ্ঠে বীরগাথা’ নামে একটি প্রকল্প নিয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন বাঙালির শ্রেষ্ঠ অর্জন। অগণিত মানুষের জীবন উৎসর্গের মাধ্যমে এই স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। পাকিস্তানি শাসকের শোষণ-নিপীড়ন থেকে জাতিসত্তা রক্ষা, আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক অস্তিত্ব পুনরুদ্ধারে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয় বাঙালি জাতি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সমাজের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ জীবনের মায়া ত্যাগ করে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। কিন্তু এই মুক্তিযোদ্ধাদের রণাঙ্গনে যুদ্ধের বীরত্বের স্মৃতি যথাযথভাবে সংরক্ষিত হয়নি। সকল বীর মুক্তিযোদ্ধার অংশগ্রহণে নেই কোনো প্রামাণ্য দলিলও (ডকুমেন্টারি)। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এই প্রকল্পের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের সাক্ষাৎকার নিয়ে সেক্টর ও অঞ্চলভিত্তিক এবং গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাবলির তথ্যচিত্র নির্মাণ তৈরি করা হবে। প্রকল্পটির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, আগামী প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংরক্ষণ করে রাখা। দেশে যেহেতু ডিজিটাল ব্যবস্থায় সম্প্রসারিত হচ্ছে, সেজন্য মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসও এই ব্যবস্থায় সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক কালবেলাকে বলেন, এরই মধ্যে প্রকল্পটি অনুমোদন হয়েছে। এখন কাজের দরপত্র আহ্বানের কার্যক্রম চলছে। খুব শিগগিরই দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন শুরু হবে। আশা করা হচ্ছে, আগামী বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি শেষ হবে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এ প্রকল্পের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের অজানা সব তথ্য তুলে আনা হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধারা নিজস্ব কণ্ঠে যুদ্ধের স্মৃতিচারণ করবেন। তাদের বীরত্বগাথা তুলে ধরবেন। ৪৯ কোটি ৫৭ লাখ টাকার এই প্রকল্পের আওতায় বীরাঙ্গনাদের অবদানকে স্মরণীয় করে রাখতে জীবিত সব বীরাঙ্গনা এবং মৃত বীরাঙ্গনাদের পরিবারের স্মৃতিচারণামূলক ভাষ্য গ্রহণ করা হবে। এই ই-আর্কাইভে ৮০ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার সাক্ষাৎকারের ইউটিউব কনটেন্ট থাকবে। থাকবে ১৬টি ডকুমেন্টারি।

ডকুমেন্টারিগুলোর মধ্যে বীরাঙ্গনাদের জন্য দুটি, বিভিন্ন সেক্টরের সম্মুখ যুদ্ধের জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ১০টি এবং দেশবরেণ্য মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য চারটি ডকুমেন্টারি নির্মিত হবে। কোন কোন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতিকথা এসব ডকুমেন্টারিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে, তা প্রকল্প চলাকালীন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি কমিটি নির্ধারণ করবে। প্রতিটি জেলার মুক্তিযোদ্ধাদের সাক্ষাৎকারভিত্তিক বই প্রকাশ করা হবে। আউটসোর্সিং পদ্ধতিতে একক বা যৌথ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam