তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২৭ অপরাহ্ন

নন্দীগ্রামে নবান্ন উপলক্ষ্যে মাছের মেলা

  • প্রকাশ শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২২, ১.২০ পিএম
  • ২২ বার ভিউ হয়েছে

 

জিল্লুর রয়েল, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : নবান্ন শব্দের অর্থ নতুন অন্ন। আর এ নবান্ন উৎসব বলতে নতুন আমন ধান কাটার পর সেই ধানের চালের প্রথম রান্না উপল্েয এ নবান্ন উৎসব। বাংলা পঞ্জিকা অনুসারে আজ শুক্রবার পহেলা অগ্রহায়ণ হওয়ায় নন্দীগ্রাম উপজেলার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা নবান্ন উৎসব পালন করছে। ঐতিহ্যবাহী এ নবান্ন উৎসবের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে হরেক রকম মাছ ক্রয়। এছাড়া মেয়ে-জামাই ও অন্যান্য আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে নিয়ে এসে সুস্বাদু খাবার তৈরী করে খাওয়ানো হয়। এ নবান্ন উৎসব ঘিরে প্রতিবছর মাছের মেলা বসে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে। সরেজমিনে উপজেলার রণবাঘা ও ওমরপুর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, মাছের দোকানে ১ থেকে ৪৫ কেজি ওজন পর্যন্ত মাছ রয়েছে। ৪৫ কেজি ওজনের সবচেয়ে বড় বাঘাইড় মাছটি দাম হাকা হচ্ছে ৫৫০০০ হাজার টাকা। এছাড়া মেলায় আকারভেদে রুই ৩৫০-৭০০, কাতলা ৩০০-৭৫০, বিগহেড ৩০০-৬৫০, সিলভার কার্প ২৫০-৫০০, চিতল ৫০০-১০০০, বাঘাইড় ৫০০-১২০০, বোয়াল ৫০০-১৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া বাজারে নতুন আলু ও শীতকালীন হরেক রকমের সবজিও উঠেছে। ওমরপুর মেলায় মাছ কিনতে আসা স্বপন চন্দ্র মহন্ত বলেন, নবান্ন উৎসবকে কেন্দ্র করে প্রতিবছর নন্দীগ্রামের বিভিন্ন বাজারে মাছের মেলা বসে। মাছের মেলাকে ঘিরে ওমরপুর বাজারে উৎসব মুখর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এবার মাছের দাম একটু বেশি মনে হচ্ছে। মেলায় মাছ বিক্রি করতে আসা শাহাদত হোসেন ও ফটিক চন্দ্র জানান, নবান্ন উপলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এখানে মাছ আনা হয়। বড় বড় ব্যবসায়ীরা এক থেকে দুই লাখ টাকার মাছ মেলায় বেচার জন্য এনেছে। অন্য বছরের তুলনায় এবার ক্রেতা বেশি। তাই মাছ বিক্রি বেশি হবে বলে আশা করছি। মাছের দাম স্বাভাবিক আছে। সবজি বিক্রেতা লতিফ সরকার বলেন, আজ শুক্রবার ওমরপুরের হাটবার। এর সাথে আজ নবান্ন পরেছে। এজন্য শাকসবজি বিক্রি খুব ভালো হচ্ছে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam