তথ্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক নিবন্ধনকৃত, যার রেজি নং-৩৬

মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৫১ পূর্বাহ্ন
সদ্য সংবাদ :
গাইবান্ধায় তথ্য মেলা উদ্বোধন বুস্টার ডোজের আওতায় প্রায় সাড়ে ৬ কোটি মানুষ স্মার্টফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করে ভালো ফল পাচ্ছে মার্কিন হাইস্কুল আজ ছাত্রলীগের সম্মেলন, উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ কোরিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট কাটল ব্রাজিল রাস্তায় সমাবেশের অনুমতি পাবে না বিএনপি : ডিএমপি কমিশনার উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষায় ব্যর্থ হওয়ার সুযোগ নেই নন্দীগ্রামে কমছে আলুর চাষ, বাড়ছে সরিষা ১৭ বছরে মৌলভীবাজার জেলার  ২ লক্ষ ৫ হাজার মানুষের বিদেশে কর্মসংস্থান,রাখছেন  দেশের অর্থনীতিতে রাখছেন ভূমিকা পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার কবর জিয়ারত করলেন রংপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক

রংপুরে আইনজীবী হত্যায় দুজনের মৃত্যুদণ্ড

  • প্রকাশ সোমবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২২, ১০.৫৬ এএম
  • ২২ বার ভিউ হয়েছে

মুক্তিনিউজ২৪ ডট কম ডেস্ক : আইনজীবী আসাদুল হক হত্যা মামলায় দুইজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক হাসান মাহমুদুল ইসলাম দুই বছর আগের এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

আসাদুল হক রংপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী ছিলেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, রংপুর মহানগরীর তাজহাট এলাকার ধর্মদাস বারো আউলিয়া গ্রামের জাফর ড্রাইভারের ছেলে রতন মিয়া (৩২) ও খোর্দ্দ তামপাট আদর্শপাড়া এলাকার মনির মিস্ত্রীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৬)।

এ মামলায় মোর্শেদা বেগম নামে এক নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং একইসঙ্গে প্রত্যেক আসামিকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছেন আদালত।

রায় ঘোষণার পর আসামিরা আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন বলে আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল মালেক জানান।

মামলার বিবরণে বলা হয়, ২০২০ সালে মহামারি পরিস্থিতিতে ধর্মদাস বারো আউলিয়া এলাকার বাড়িতে আসাদুল একাই থাকতেন। তার ছোট মেয়ে বগুড়া আজিজুল হক কলেজের শিক্ষার্থী আরফিন নাহার অংকনকে নিয়ে স্ত্রী নিজ গ্রামের বাড়ি মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া ছড়ান এলাকায় অবস্থান করছিলেন।

ওই বছরের ৫ জুন শুক্রবার দুপুরে ধর্মদাস বারো আউলিয়া এলাকার বাড়িতে চুরি করতে গিয়ে আসাদুলের হাতে ধরা পড়েন আসামি রতন মিয়া। এ সময় তার এক সহযোগী পালিয়ে যান।

এ সময় আসাদুলের গলায় এবং পেটে ছুরিকাঘাত করে দেয়াল টপকে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা রতনকে আটক ও মারধর করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। পরে তাজহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই আইনজীবীর মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় নিহতের ছোট মেয়ে বাদী হয়ে ঘটনার দিনই রতন মিয়া ও সাইফুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে তদন্তে মোর্শেদা বেগমের নাম আসে। তিনি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত রতন মিয়ার মা।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Muktinews24.com © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.muktinews24.com কর্তৃক সংরক্ষিত.
Technical Support Moinul Islam